অভাবে কারণে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যা করে আত্মহত্যা করেছেন এক যুবক। শুক্রবার ভোরে পশ্চিমবঙ্গের বারাণসীর নাচনি কুয়ানের আদমপুর অঞ্চলে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সূত্রের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময় এ তথ্য জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, সপরিবার আত্মহত্যার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। ঘরের দরজা ভেঙে ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় সিলিং থেকে ঝুলে পড়েন ওই ব্যক্তি। একই ঘরের মেঝে থেকে তার স্ত্রীর (৪৫) লাশ উদ্ধার হয়েছে।

পাশের ঘরের বিছানা থেকে উদ্ধার হয় ওই দম্পতির দুই সন্তানের লাশ। ছেলের বয়স ১৭, মেয়ের ১৫।

ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোটও পুলিশ পেয়েছে। সেখানে পরিবারের আর্থিক দুর্দশার উল্লেখ রয়েছে।

তবে প্রাথমিক তদন্তে আত্মহত্যা বলে মনে হলেও, তদন্ত শেষ হওয়ার আগে এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলতে নারাজ পুলিশ।

অন্যান্য সম্ভাবনাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশ কর্মকর্তা প্রভাকর জানান, ওই ব্যক্তি আত্মহত্যা করার আগে ১১২ ডায়াল করে পুলিশে ফোন করেন।

ফোনে তিনি জানান, স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিজে হাতে খুন করেছেন। এ বার নিজেও আত্মহত্যা করতে চলেছেন।

পুলিশের ধারণা, শ্বাসরোধ করে ছেলেমেয়েকে হত্যার আগে ঘুমের ওষুধ খাইয়েছিলেন ওই ব্যক্তি।

তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, ব্যবসায় লোকসান হয়ে ওই ব্যক্তি ভেঙে পড়েন। এরপর ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি। তাই সপরিবার আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হন।