রাজধানীর একটি ফ্ল্যাটে আওয়ামী লীগ নেত্রী কনককে কুপিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী। নিহত কনক আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক উপকমিটির সদস্য। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪০ বছর। আর এই ঘটনা ঘটে
পল্লবী থানাধীন মিরপুর ডিওএইচএস, ৭৪৩ নম্বর বাসায় মধ্যরাতে।

নিহত কলকের বোন জামাই এর মাধ্যমে জানা গেছে নিহত কনকের স্বামী বেশ কয়েক বছর যাবৎ জাপানে ছিলেন। এরপর সে দেশে চলে আসে। দেশে এসে সে ব্যবসা শুরু করে। এরপর সে তার ব্যবসায় বিশাল লস করে।
তবে সে কি কারণে তার স্ত্রীকে মেরে ফেলল, তা আমি বলতে পারছি না’।

এদিকে পল্লবী থানার ওসি জানান, পারিবারিক কলহের জেরে মধ্যরাতে নিহতের স্বামী তার স্ত্রী কনককে বটি দিয়ে কোপাতে থাকে। এক পর্যায়ে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে মেডিক্যালে নিয়ে আসা হয়। এরপর গুরুতর অবস্থায় কনক ভোর ৫ টায় মৃত্যু বরণ করেন।
তিনি আরো বলেন, নিহতের স্বামী বেশ কয়েক বছর জাপান থাকতেন, এরপর গত ৫ বছর ধরে দেশে বাস করছেন। তার ব্যবসা বাণিজ্যের অবস্থাও খারাপ চলছিল। ফ্ল্যাট নিয়ে স্বামী স্ত্রী মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নিহতের স্বামী তাকে কোপাতে থাকে।’

কনকের মৃত্যুর পর তার স্বামী ওমর ফারুককে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে সে জেল হাজতে আছে।