অনেকে শুধু মনে করেন গরমে টক দই খেলে উপকার পাওয়া যায়। তবে আপনি জানেন কী শীতে কিন্তু টকদই খেলে উপকার পাওয়া যায়।

শীতে শরীর ঠাণ্ডা ও তাজা রাখে। আয়ুর্বেদ বলছে, শীতে টকদই খেলে সর্দি-কাশি বাড়ে। তবে পুষ্টিবিজ্ঞান বলছে, টকদইয়ে থাকা ভিটামিন সি শীতের রোগ, সর্দি-কাশি কমায়। বিশেষ করে ডায়াবেটিক রোগীরা বা যাদের মোটা হওয়ার প্রবণতা আছে, তাদের মিষ্টি ভালোবাসলেও তার স্বাদ চেখে দেখার সুযোগ ঘটে না।

প্রচুর ক্যালসিয়াম আছে। গুড ব্যাকটেরিয়া আর প্রোটিনে ভরপুর। আছে ভিটামিন৬ আর ১২, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, রাইব্লোফেবিন, যা শরীর সুস্থ রাখে।

আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ আষুতোষ গৌতমের মতে, সর্দি-কাশি থাকলে রাতে টকদই না খাওয়াই ভালো। বিশেষ করে বিকাল ৫টার পর টকদই খাওয়া উচিত নয়। যারা হাঁপানিতে ভোগেন তাদের সেই সমস্যাও বাড়ে এই খাবার থেকে।

পুষ্টিবিজ্ঞান বলছে, টকদইয়ের গুড ব্যাকটেরিয়া শীতের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে, ভিটামিন শরীরকে পুষ্ট করে, প্রোটিন ধরে রাখে শারীরিক উষ্ণতা। ক্যালসিয়াম হাড়-দাঁত মজবুত করে। তাই শীতেও চুটিয়ে টকদই খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিজ্ঞানীরা।

সূত্র: জি নিউজ