সুশান্ত সিংহরাজপুতের মৃত্যুর পর থেকে নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়েছেন আলিয়া ভাট। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, আলিয়ার ব্র্যান্ড ইমেজ ধাক্কা খেয়েছে। বলিউডের ভেতরে গুঞ্জন রয়েছে বেশ কয়েকটি এন্ডোর্সমেন্ট সম্প্রতি হাতছাড়া হয়েছে এই অভিনেত্রীর।

এক ব্র্যান্ড বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘ব্র্যান্ড এনডোর্সমেন্টের সঙ্গে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর তারকাদের ইমেজ এবং সোশ্যাল মিডিয়া ফলোয়ারের সংখ্যা। সুশান্তের ঘটনার জেরে ফলোয়ার কমেছে আলিয়ার। পাশাপাশি তার ইমেজেও দাগ লেগেছে। তাই ব্র্যান্ড হাতছাড়া হওয়া প্রত্যাশিত ছিল।’

বুদ্ধিমতি অভিনেত্রী বুঝতে পারছেন তার সময় খারাপ। জানা গেছে, আলিয়া নিজেই ব্র্যান্ডের কর্মকর্তাদের সঙ্গে গোপন বৈঠক করেছেন। সেখানে অভিনেত্রী জানান, তাকে নিয়ে এনডোর্সমেন্ট করা যদি এই পরিস্থিতিতে ঝুঁকিপূর্ণ মনে হয়, তবে তা থেকে নির্মাতারা যেন বিরত থাকেন। এ ব্যাপারে তাঁর কোনো আপত্তি নেই।

আলিয়ার দুর্দিনের এই সুযোগে কিয়ারা আদ্ভানি বেশ কয়েকটি ব্র্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে। কয়েকদিন আগে ঘোষিত একটি জনপ্রিয় অনলাইন ফ্যাশন লেভেলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন তিনি। যদিও প্রেমিক রণবীর কাপুরের সঙ্গে আলিয়া যে ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন করতেন তা এখনো তার হাতে রয়েছে।

কিয়ারার পরে, ধর্মা প্রোডাকশনের যদি সমূহ বিপদ হয় তাহলে সেই হাউসের সবচেয়ে ভালো স্টুডেন্ট কিভাবে নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন? সুশান্ত সিংহরাজপুতের মৃত্যুর পর থেকে নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়েছেন আলিয়া ভাট এবং করণ জহর। ইমেজনির্ভর ইন্ডাস্ট্রিতে হ্যাশট্যাগ ঝড় দিনে দিনে তার শক্তি বাড়াচ্ছে। তাই আশঙ্কা ছিল যে এই ঘটনার ফলে আলিয়ার ব্র্যান্ড ইমেজ ধাক্কা খাবে। ইন্ডাস্ট্রির ভেতরে গুঞ্জন রয়েছে বেশ কয়েকটি এন্ডোর্সমেন্ট সম্প্রতি হাতছাড়া হয়েছে অভিনেত্রীর। ব্র্যান্ড এনডোর্সমেন্টের সঙ্গে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর তারকাদের ইমেজ এবং সোশ্যাল মিডিয়া ফলোয়ারের সংখ্যা। 

সুশান্তের ঘটনার জেরে ফলোয়ার কমেছে আলিয়ার। পাশাপাশি তার ইমেজও লেগেছে দাগ। তাই ব্র্যান্ড হাতছাড়া হওয়া প্রত্যাশিত ছিল। তবে আরেকটি গল্পও রয়েছে। রিয়া চক্রবর্তী সঙ্গে মহেশ ভাটের নাম জড়ানোর ফলে বেশ বিপাকে ভাট ক্যাম্প। তার ওপরে যোগ হয়েছে ‘সড়ক টু’ ছবির চরম ব্যর্থতা। সব মিলিয়ে সময় যে ভালো নয়, তা বুদ্ধিমতি অভিনেত্রী ভালোই  বুঝতে পারছেন। ইন্ডাস্ট্রিজের ভেতরের খবর, আলিয়া নিজেই ব্র্যান্ডের কর্মকর্তাদের সঙ্গে গোপন বৈঠক করেছেন।

সেখানে অভিনেত্রীর আর্জি তাকে নিয়ে এনডোর্সমেন্ট করা যদি এই পরিস্থিতিতে ঝুঁকিপূর্ণ মনে হয়, তবে তা থেকে নির্মাতারা যেন বিরত থাকেন। এতে তাঁর কোনো আপত্তি নেই।

বিশেষজ্ঞদের মতে এটাকে আলিয়ার ‘self-defense’ পদক্ষেপ বলা যায়। ব্র্যান্ড পাওয়াও হাতছাড়া হওয়ার সবটাই হিসেবের অংক। এই সুযোগে কিয়ারা আদ্ভানি বেশ কয়েকটি ব্র্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে। কয়েকদিন আগে ঘোষিত, একটি জনপ্রিয় অনলাইন ফ্যাশন লেভেলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন তিনি। কিয়ারার পরে, সারা আলি খানও ব্র্যান্ড এন্ডোর্সমেন্টে আলিয়াকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন।

এই অবস্থায় সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাক্টিভিটিও কমিয়ে দিয়েছেন আলিয়া এবং নিজের গৌরব পুনরুদ্ধারের চেষ্টায় অপেক্ষা করছেন।

0000

অবশ্যই পড়ুন

0000