বলিউড অভিনেত্রী সানা খান বিনোদন জগৎকে চিরদিনের মতো বিদায় জানালেন।  সোশ্যাল মিডিয়ায় এ ঘোষণা দিয়ে তিনি জানান, এবার শুধু ধর্ম ও মানবসেবায় মন দেবেন তিনি।

পৃথিবীতে মানুষের আসা মানেই কি অর্থ ও খ্যাতির পেছনে দৌড়ানো? সানা তাঁর ইনস্টাগ্রামে পোস্টে লেখেন, জীবনের এক গুরুত্বপূর্ণ সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আমি আপনাদের সঙ্গে কথা বলছি। বিনোদন জগতে আমি বহু বছর ধরে ছিলাম। এই সময়ে আমি আল্লাহর দয়ায় বহু খ্যাতি, অর্থ ও ভক্তদের থেকে ভালোবাসা পেয়েছি। যার জন্য আমি চিরকৃতজ্ঞ থাকব।

কিন্তু কিছুদিন ধরেই একটা জিনিস ভাবছি, পৃথিবীতে মানুষের আসা কি অর্থ ও খ্যাতির পেছনে দৌড়ানোর জন্য? দরিদ্র ও অসহায়দের জন্য কাজ করা কি কর্তব্য নয়? একজনের কি ভাবা উচিত নয় যে তিনি যেকোনো মুহূর্তে মারা যেতে পারেন? এই প্রশ্নের উত্তর আমি খুঁজে বেড়াচ্ছি। বিশেষ করে জানতে চাই, মৃত্যুর পরে আমার কী হবে? এসব প্রশ্নই এখন সানার।

সানা বলেন, আমার ধর্মের মধ্যে এর উত্তর খুঁজতে যাই। বুঝতে পারি, এই পৃথিবীতে জন্ম নিয়ে মৃত্যু-পরবর্তী জীবনের উন্নতির জন্য কাজ করা দরকার। সৃষ্টিকর্তার নির্দেশমতো যদি একজন ভৃত্য তার জীবনযাপন করেন তাহলেই ভালো। সব সময় অর্থ ও খ্যাতির পেছনে ছুটলেই সেটা হয় না।

বরং পাপের রাস্তা ছেড়ে সৃষ্টিকর্তার দেখানো পথেই হাঁটা উচিত। তাই আজ ঘোষণা করছি, আজ থেকে বিনোদন জগৎ থেকে চিরকালের মতো বিদায় নিলাম। আজ থেকে মানবিকতার জন্য কাজ করব এবং সৃষ্টিকর্তার নির্দেশ মেনে চলব। প্রত্যেক ভাই-বোনকে আল্লাহর কাছে আমার জন্য প্রার্থনা করতে বলছি, যাতে আমায় এই কাজে তিনি অনুমতি দেন এবং গ্রহণ করেন। আমার সব ভাই-বোনকে অনুরোধ করব, তারা যেন আমার সঙ্গে বিনোদন জগৎ নিয়ে আর কোনো আলোচনা না করেন। ধন্যবাদ।  

সানার এই পোস্ট মুহূর্তে ভাইরাল হয় ইন্টারনেট দুনিয়ায়। অনেকেই তাঁর এই হঠাৎ অন্তরালে চলে যাওয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করেন। তবে তাঁর ব্যক্তিগত এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে শুভ কামনাও করেছেন তাঁর ভক্ত-অনুরাগীরা।

‘ওয়াজাহ তুম হো’, ‘জয় হো’সহ আরো অনেক আঞ্চলিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন সানা। টেলিভিশনে বেশ কিছু রিয়ালিটি শোর অংশ ছিলেন তিনি। এ ছাড়া বিগ বস শো’তেও মাঝেমধ্যেই অতিথি হতেন সানা।  

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রেমিক মেলভিন লুইসের সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটে সানার। লুইসের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ তুলে সম্পর্কের সমাপ্তি ঘটান তিনি। এই তিক্ত বিচ্ছেদের পর অনেকটাই বিষণ্ণতায় ভুগছিলেন অভিনেত্রী। এবার সব সংকট ও হতাশা থেকে মুক্তির পথ তিনি ধর্মের মধ্যেই খুঁজে পেলেন।

0000

আজকের জনপ্রিয়

0000