এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার বিষয়ে কোনো কথাই বলেননি আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক। বৃহস্পতিবার দুপুরে দেশের সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্য বিষষয়ে কথা বললেও এ বিষয়টি নিয়ে কিছু বলেননি। যদিও এ বৈঠক থেকে এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছিল।

এখনই এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না বলে গত ২২ সেপ্টেম্বর অভিমত ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তিনি সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে দলের শীর্ষ নেতাদের জানান।

জিয়াউল হক বলেন, মূল্যায়নের ক্ষেত্রে ১৫ মার্চ পর্যন্ত ক্লাস, সংসদ টিভির ক্লাস ও অনলাইনের ক্লাসকে প্রাধান্য দেওয়া হবে। স্কুল খোলার মতো পরিবেশ সৃষ্টি হলে সামনাসামনি মূল্যায়নের মাধ্যমে অন্য ক্লাসে উত্তীর্ণ করা হবে। এ ক্ষেত্রে অটো প্রমোশন বলতে কিছু নেই। শিক্ষার্থীদের সব শিক্ষকই চেনেন। প্রত্যেক শিক্ষার্থীর মেধা মূল্যায়ন করেই অন্য ক্লাসে উত্তীর্ণ করবেন।

তিনি বলেন, অষ্টম থেকে নবমে অটো প্রমোশন হবে না, যেকোনো পদ্ধতিতেই মূল্যায়ন হবে। এ ছাড়া পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণির বিষয়ে মাউশি থেকে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

একাদশ-দ্বাদশ ক্লাসের বিষয়ে তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের নিজস্ব মূল্যায়ন পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে তুলে দেবে।