চীনে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায় মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে আকাশ ও সীমান্তপথে সব ধরনের যোগাযোগ সাময়িকভাবে কমিয়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির আধা স্বায়ত্তশাসিত শহর হংকং।

হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, সাময়িক সময়ের জন্য এমন যোগাযোগ বন্ধ করা হচ্ছে।

সিএনএন জানিয়েছে, চীনে আজ (মঙ্গলবার) পর্যন্ত করোনাভাইরাস আক্রান্তে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০৬ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া সাড়ে ৪ হাজার মানুষ এ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন।

এ সময় তিনি মূল ভূখণ্ড (চীন) থেকে আসা দর্শকদের জন্য ইস্যু করা পর্যটন ভিসার সংখ্যা কমিয়ে আনা ও মূল ভূখণ্ড থেকে অভ্যন্তরীণ বিমানের সংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনার কথা জানান।

চীনের হুবেই প্রদেশের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই অঞ্চলে ২৭০০ জন আক্রান্তের ঘটনায় ১৩০০ মানুষকে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চত হওয়া গেছে। বেশিরভাগ আক্রান্ত মানুষ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এদের মধ্যে ১২৫ জনের অবস্থা গুরুতর। রোববার ও সোমবার থেকে আজ (মঙ্গলবার) পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫ শতাংশ বেড়েছে। যা ২৭০০ থেকে সাড়ে ৪ হাজারে (৪৫০০) উন্নীত হয়েছে।

হংকংয়ের আইনপ্রণেতা ও মেডিকেল ইউনিয়নের পক্ষ থেকে তীব্র চাপ আসার পরে এ সিদ্ধান্ত নেয় হংকং। এর আগে তারা হুমকি দিয়েছিল সীমান্ত বন্ধ না হলে অবরোধ ডাকা হবে।

এ দিকে সোমবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থার (সিডিসি) পক্ষ থেকে চীনে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণের ব্যাপারে ৩য় লেভেলের সতর্কতা জারি করে। এক থেকে তিনের মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় সতর্কতা।

মার্কিন রোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিডিসি জানায়, করোনাভাইরাসের কারণে শ্বাসকষ্টজনিত অসুস্থতা দেখা দেয়। এটি মানুষের মধ্যে একে অন্যের শরীর থেকে ছড়ায়।

যে সব দেশে করোনাভাইরাস আক্রমণ করেছে তার একটি তালিকা প্রকাশ করেছে সিএনএন। এতে শীর্ষে রয়েছে চীন। দেশটিতে এ ভাইরাস আক্রমণে মারা গেছে এ পর্যন্ত ১০৬ জন। আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৪ হাজারের বেশি। এর পরই রয়েছে চীনের আধা-সায়ত্তশাসিত শহর হংকং-৮ ও চীনের আরেকটি বিশেষ প্রশাসনিক শহর মাকাওতে আক্রান্তের সংখ্যা-৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

এ ছাড়া বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাস আক্রমণ করেছে। দেশগুলো হল-

অস্ট্রেলিয়া-৫, কম্বোডিয়া-১, কানাডা-১, ফ্রান্স-৩, জার্মানি-১, জাপান-৪, মালয়েশিয়া-৪, নেপাল-১, সিঙ্গাপুর-৫, দক্ষিণ কোরিয়া-৪, শ্রীংলকা-১, থাইল্যান্ড-৮, তাইওয়ান-৪, যুক্তরাষ্ট্র-৫ ও ভিয়েতনামে ২ জন।

এ দিকে ভারতের গণমাধ্যম ইকোনোমিক টাইমস মঙ্গলবার জানিয়েছে, করোনাভাইরাস সন্দেহে কেরালার বিভিন্ন হাসপাতালে ৫ জনকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে।