কিডনি রোগ থেকে বাচার আগে সর্বপ্রথম আমাদের যা জানতে হবে তা হল কিভাবে আমরা কিডনি জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকি। কিডনি রোগ এক সাথে হটাত করে কারো হয়ে যায় না, এই অসুখটি খুব ধিরে ধিরে আমাদের শরীরে বাসা বাধে।

এই রোগটি আমাদের শরীরে বাসা বাধার সর্বপ্রথম যে কারন তা হল কিডনির উপর চাপ পরা। এখন আপনি হয়তো ভাবছেন যে কিডনির উপর আবার কিভাবে চাপ পরে। এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে, আপনি যদি আপনার প্রসাব দীর্ঘক্ষণ ধরে আটকে রাখেন তাহলে আপনার কিডনির উপর চাপ পরে। এ কাজটি আমাদের মধ্যে অনেকেই করে থাকেন যে বাইরে গেলে বাথরুমে যেতে চান না। তবে এই বাজে অভ্যাসটি আমাদের কিডনিকে ধিরে ধিরে দুর্বল করে ফেলে। ৯৪% মানুষ যারা এই প্রসাব আটকে রাখার কাজটি করে থাকে তারা সারা জীবনের যে কোন এক পর্যায়ে কিডনি রোগে ভুগে থাকেন।

কিডনি রোগ থেকে বাঁচতে যা যা করবেন-

১। কিডনি রোগ থেকে বাঁচতে সর্বপ্রথম যে কাজটি করবেন তা হল কোন সময় প্রসাব আটকে রাখবেন না। অনেকে বাড়ির বাইরে থেকে নয় বরং বাড়িতে বসে থেকেও এই কাজতি করে থাকেন। এমন করার ফলে কিডনির উপর খুব বেশি ধরনের চাপ পরে ও কিডনির কার্যক্ষমতা কমে আসে ধিরে ধিরে।

২। প্রতিদিন আমাদের সবার শরীরে ৮ গ্লাস পানির প্রয়োজন পরে। এই পানি যদি আমরা পরিমান মত না পান করি তাহলে আমাদের কিডনিতে নানা সমস্যা দেখা দেয়। তাই নিয়ম করে প্রতিদিন ৮ গ্লাস পানি পান করতে হবে।

৩। নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে, সেই সাথে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় যে কোন ধরনের ফল ও সালাত রাখতে হবে।

৪। নিয়মিত হাটার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। প্রতিদিন কমপক্ষে ২০ থেকে ৩০ মিনিট হাটতে হবে, সেই সাথে যদি সম্ভব হয় তাহলে হালকা ব্যায়াম করতে হবে।

৫। কখনো যদি প্রসাবে জ্বালা করে বা তলপেটে ব্যাথা অনুভব হয় তাহলে ডাক্তারের সারনাপন্ন হতে হবে।

৬। যে কোন ধরনের ব্যাথার মেডিসিন নিয়মিত খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।