কেরানীগঞ্জে স্ত্রীকে একাধিকবার ছুরিকাঘাতে রক্তাক্ত জখম করার পর স্বামী রাসেল (২৬) নিজের বুকে ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

আহতের নাম আম্বিয়া (২২)। তাকে প্রথমে মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ার পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এসআই সৌরভ কুন্ডু জানান, স্থানীয়রা আহত অবস্থায় দুজনকে উদ্ধার করে মিটফোর্ড হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে মারা যান রাসেল। অবস্থার অবনতি হওয়ায় আম্বিয়াকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সোহেল নামে এক দোকানদার জানান, রাত সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ এক যুবক এক নারীকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করতে থাকে। নারীর হাত-পা পেটসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে যুবকটি ছুরিকাঘাত করে।

রক্তাক্ত শরীরে ওই নারী লুটিয়ে পড়ে। এসময় যুবকটি হামলায় ব্যবহৃত ছুরিটি নিজের বুকে বিধিয়ে দেয়। পরে আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ শাহজামান বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত ও আহত দুজন স্বামী স্ত্রী হলেও আলাদা বসবাস করতেন। তাদের মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না। ঘটনাস্থলের পাশে একটি গার্মেন্টসে পোশাক শ্রমিকের চাকরি করে আম্বিয়া।

রাতে কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে রাসেল তাকে পথে আটকায়। রাসেল আম্বিয়াকে তার সঙ্গে যাওয়ার অনুরোধ করে। আম্বিয়া যেতে রাজি না হওয়ায় দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে রাসেল ছুরি দিয়ে আম্বিয়ার উপর হামলা চালায়। এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে রক্তাক্ত জখম করে। পরে নিজের বুকি ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যা করে রাসেল।