শ্রেণি কক্ষে প্রেমপত্র লেখায় দুই শিশুকে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে শাস্তি দিয়েছেন এক প্রধান শিক্ষক। পরে এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় উঠেছে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) অন্ধ্রপ্রদেশের অনন্তপুর জেলার কাদিরি শহরে এ ঘটনা ঘটে। শাস্তি পাওয়া ওই দুই ছাত্রের এক জন তৃতীয় ও অন্যজন পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে।

তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ক্লাসের পড়াশোনায় নাকি মনযোগ ছিলো না তাদের। তাই তাদের হাত-পা রশি দিয়ে বেঁধে রাখা হয় বেঞ্চের পায়ার সঙ্গে।

এদিকে এ ঘটনার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবিও তুলেছেন অনেকেই।

তবে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার অভিযোগ, এক ছাত্র ক্লাসে বসেই প্রেমপত্র লিখছিলো। অন্যজন তার সহপাঠীর জিনিস কেড়ে নিয়েছিলো। তার দাবি, আমি ওদেরকে বেঁধে রাখিনি। ওদের মায়েরা ওদেরকে বেঁধে রেখেছিল। কিন্তু স্কুলের মধ্যে কী করে দু’জন ছাত্রকে বেঁধে রাখতে দেয়া হলো? এই প্রশ্নের কোনো জবাব দিতে পারেননি ওই শিক্ষিকা।

অচ্যুতা রাও নামে এক সমাজকর্মী বলেছেন, ‘বিষয়টি যদি একটু অন্যভাবে দেখি। তাহলে সরকারি স্কুলের বাচ্চারা ঠিক মতো ছুটির আবেদনপত্র লিখতে পারে না। সেখানে এক জন যদি প্রেমপত্র লিখতে পারে, সেটা আমার কাছে খুশির খবর।’

অন্ধ্রপ্রদেশের শিশু অধিকার রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান জি হৈমবতী বলেছেন, ‘আমার সঙ্গে জেলা প্রশাসক ও পৌর কমিশনারের কথা হয়েছে। বিষয়টির তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’ সূত্র: আনন্দবাজার