‘আমি ভালো আছি। শীতের শুরুতে হাঁপানির দাপট আচমকাই বেড়ে গিয়েছিল। তাই ভর্তি হতে হয়েছিলাম নার্সিংহোমে। ঘুমের ওষুধ খাইনি। আত্মহ’ত্যার চেষ্টাও করিনি। সবটাই গুজব। এসবে কান দেবেন না প্লিজ। আর দিন দুয়েকের বিশ্রাম। ডাক্তারবাবুরা বলেছেন, তারপরেই আমি আবার কাজ শুরু করতে পারব।’

আইসিইউ থেকে ছাড়া পেয়ে নিজের ইনস্টাগ্রামে এই ভিডিও বার্তা দিলেন টালিউড সুন্দরী ও পশ্চিমবঙ্গ থেকে নির্বাচিত ভারতীয় পার্লামেন্ট সদস্য নুসরাত জাহান। আপাতত এই ভিডিও আগুনের মতো ছড়িয়ে পড়েছে। কারণ, রবিবার রাত সাড়ে ৯টার সময় অ্যাপোলো গ্লেনিগালসের আইসিইউ-তে ভর্তি হওয়ার পর কলকাতায় তোলপাড় হয়েছিল, আত্মহ’ত্যা করতে গেছিলেন সংসদ সদস্য-অভিনেত্রী নুসরত জাহান, এই খবরে।

ঠিক কী হয়েছিল অঘটনের দিন? খবর, রবিবার রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ নুসরতকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তার চিকিৎসার জন্য গঠন করা হয় আলাদা মেডিকেল বোর্ড। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, হাঁপানির সমস্যা আছে এমপির। নিয়মিত ইনহেলার নেন। কিন্তু রোববার অবস্থা বাড়াবাড়ি পর্যায়ে পৌঁছোলে ইনহেলার নেয়ার পরও সুস্থ হননি তিনি। তখনই তাকে নিয়ে যাওয়া হয় অ্যাপোলোয়। একই সঙ্গে, বেশি ওষুধ খাওয়ার কথা হাসপাতাল সূত্রেই সামনে এসেছিল।

পরে যদিও নুসরতের ঘনিষ্ঠজনেরা জানিয়েছেন, এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি। রবিবার রাত থেকে নিখিল জৈন হাসপাতালে নুসরতের পাশেই রয়েছেন। খবর, রবিবার সন্ধ্যায় স্বামী নিখিলের জন্মদিন ধুমধাম করে পালন করেন নুসরাত। ইনস্টাগ্রামে সেই ছবিও দেন। তারপরেই ঘটে এই অঘটন। অনেকেরই ধারণা, অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়ে নাকি আত্মহত্যা করতে গেছিলেন নুসরাত!

ভিডিও-তে নুসরত আরো বলেন, তার ডাস্ট অ্যালার্জি আছে। শহরে যে পরিমাণে দূষণ বেড়েছে তাতে আচমকাই শ্বাসকষ্ট বাড়াবাড়ির পর্যায়ে চলে যায়। ভর্তি হতে হয় হাসপাতালে।

নুসরাতের অসুস্থতার খবর শোনামাত্র অনুরাগীরা সোশ্যালে তার সুস্থতা চেয়ে প্রার্থনা জানান। ভিডিওতে নুসরাত বলেছেন, সবার ভালোবাসার জোরেই তিনি সুস্থ হয়ে ফিরছেন। তিনিও এভাবেই সবার হৃদয়ে থেকে যেতে চান আজীবন।
সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস