বর্তমান সময়ে আমরা সবাই ব্যাস্ত, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কি কি করতে হবে তা আমাদের আগেরদিন থেকেই চিন্তা করা থাকে। এই কর্ম ব্যাস্ততার জন্য অনেক সময় আমরা নিজেদের জন্য সময় বের করতে পারি না। যার ফল সরুপ পরবর্তীতে আমাদের নানা ধরনের সমস্যায় ভুগতে হয়।

আমাদের সকলের উচিত নিজের জন্য কিছু সময় বের করা, ব্যায়াম করার সময় বের করতে না পারলেও অন্তত্য প্রতিদিন ৩০ মিনিট সময় বের করে হাঁটা। আপনি যদি প্রতিদিন ৩০ মিনিট নিয়ম করে হাটেন তাহলে আপনি নানাবিধ উপকার পাবেন।

প্রতিদিন ৩০ মিনিট হাটলে যেসকল উপকার পাবেনঃ

১। আপনি যদি প্রতিদিন ৩০ মিনিট সময় ধরে হাটেন তাহলে এর জন্য আপনার শরীরের রক্ত চলাচল বেড়ে যায়। এই রক্ত চলাচল বেড়ে যাবার জন্য আপনার শরীরের অভান্ত্ররিন যে অঙ্গ রয়েছে যেমন হার্ট, কিডনি, লিভার, ফুসফুস, এগুলো খুব ভাল ভাবে কাজ করা শুরু করে।

২। প্রতিদিন নিয়ম করে হাটলে আপনার শরীরের যত পেশী রয়েছে তা নিষ্ক্রিয় অবস্থা থেকে সচল অবস্থায় ফিরে আসে ফলে আপনার শরীরের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায় ও আপনি হয়ে উঠেন আগের থেকেও অনেক বেশি একটিভ।

৩। নিয়ম করে হাটলে আপনার শরীরের ব্লাড সুগারের পরিমান নিয়ন্ত্রনে থাকে ও আপনি যদি ব্লাড সুগারের রুগী হয়ে থাকেন তাহলে আপনার শরীর অনেক বেশি ভাল থাকে সাধারন অবস্থার থেকে।

৪। আপনি যদি প্রতিদিন হাটেন তাহলে আপনার নিউরো সেল বা মস্তিষ্কের কোষ গুলো একটিভ হয়ে উঠে, ফলে যে কোন কিছু আপনি খুব সহজে মনে রাখতে পারেন। সেই সাথে আপনার যদি মাথা ব্যাথা বা মাইগ্রেনের সমস্যা থেকে থাকে তাহলে তা কমে আসে।

৫। আপনি যদি নিয়মিত হাটেন তাহলে আপনার শরীরে বাড়তি মেদ জমতে পারে না বা আপনি যদি বাড়তি মেদের সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে নিয়মিত হাটতে থাকেন তাহলে ধিরে ধিরে আপনার ওজন নিয়ন্ত্রনে চলে আসবে।

৬। আপনি যদি কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যায় ভুগে থানে তাহলে নিয়ম করে হাটার থেকে আর কোন বড় সমাধান আপনি পাবেন না। আপনি নিয়মিত ৩০ মিনিট করে সকালে বা রাতে হাটলে আপনার এই কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা এক সপ্তাহের মধ্যে নিয়ন্ত্রনে চলে আসবে।

৭। আপনি যদি নিয়মিত হাটেন তাহলে আপনার মানসিক অবসাধ দূর হয়ে যাবে। আপনার মন থাকবে ভালো, সেই সাথে আপনি সব কিছু করতে নতুন ভাবে উদ্যমতা পাবেন।