সকালে ঘুম ভাঙার পর এক কাপ চা অনেকের প্রিয়। কিন্তু আপনি কি জানেন, চায়ের কাপে থাকা টি-ব্যাগ থেকে বের হওয়া কয়েক কোটি প্লাস্টিক কণাও আপনার পেটে ঢুকছে চায়ের সঙ্গে। সম্প্রতি কানাডার একদল গবেষকের করা গবেষণায় টি-ব্যাগে প্লাস্টিক কণার উপস্থিতি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, প্লাস্টিকের টি-ব্যাগ থেকে কাপে প্রচুর পরিমাণে প্লাস্টিক কণা নির্গত হয়। যা প্রতিনিয়ত শরীরে ঢুকছে। যদিও এর নির্দিষ্ট প্রভাব এখনো অজানা, তবে এটা নিশ্চিত বলা যায়- এই কণা শরীরে খুবই ক্ষতিকর।

কানাডার ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা চারটি ভিন্ন ভিন্ন বাণিজ্যিক টি-ব্যাগকে ফুটন্ত পানিতে রাখার পর এর প্রভাব বিশ্লেষণ করেছেন। এমনকি এই পরীক্ষাটি তারা বার বার চালিয়ে একই ফল পেয়েছেন।

তারা দেখেছেন, এক কাপ ফুটন্ত পানিতে একটি টি-ব্যাগ ১১ দশমিক ছয় বিলিয়ন প্লাস্টিক কণা (মাইক্রোপ্লাস্টিক) ছাড়ে। এটা ছাড়াও তিন দশমিক এক বিলিয়ন অতিসূক্ষ্ম প্লাস্টিক (ন্যানো প্লাস্টিক) কণা ছাড়ে।

গবেষণার বিস্তারিত বিবরণ চলতি মাসে আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটি জার্নাল এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে প্রকাশিত হয়েছিলো। তারা জানাচ্ছেন, বেশ কিছু চা বিক্রয়কারীরা কাগজের টি ব্যাগের পরিবর্তে প্লাস্টিকের টি ব্যাগগুলিতে চা বিক্রি করছেন। এ বিষয়ে জনসাধারণকেই সচেতন হতে হবে। তারা জানেন কীভাবে প্লাস্টিক আমাদের শরীরের এবং সমগ্র প্রকৃতির ক্ষতি করছে। এই টি ব্যাগে ব্যবহৃত প্লাস্টিক গ্রহণের ফলে স্বাস্থ্যের প্রভাবগুলি এখনও যদিও অজানা তবু এটা নিশ্চিত যে এগুলি যথেষ্ট ক্ষতিকারক। যদিও বিশ্বজুড়ে মানুষ অজান্তেই প্রচুর পরিমাণে টি ব্যাগ ব্যবহার করে চা পান করেন।

তাই গবেষকদের পরামর্শ, দোকান থেকে টি ব্যাগ কেনার আগে যাচাই করে নিন সেগুলি প্লাস্টিকের তৈরি নাকি কাগজের তৈরি! কাগজের তৈরি হলে তবেই সেই টি ব্যাগ কিনুন, নিজের স্বাস্থ্যের সুরক্ষার জন্য়েই বর্জন করুন প্লাস্টিক।