বরাবরের মতো এবারো নেটিজেনদের রোষানলে পড়েছেন মিথিলা। কটাক্ষ করে মন্তব্য ছুঁড়ছেন তারা। যে কোন ছবি পোস্ট করার কিছু সময়ের মধ্যে শুরু হয় নানা ধরনের বাজে মন্তব্য। নেটিজেনদের মধ্যে বেশির ভাগ লোক তার পোস্টে ‘হা হা হা’ রিঅ্যাক্ট দেন কিন্তু সব থেকে খারাপ বিষয় হচ্ছে, তার সব পোস্টে অধিকাংশ মন্তব্য ‘নোংরা’ ভাষায় করা হয়েছে।

গত ২১ তারিখে মিথিলা তার এই ছবিটি ইনস্টাগ্রামে ও ফেসবুকে পোস্ট করেন। তাতে ক্যাপশানে লিখেন “Insta-live adda with Parambrata Chattopadhyay!” তারপর শুরু হয়ে যায় তাকে আর পরমকে জড়িয়ে নানা ধরনের বাজে মন্তব্য। নিচে সেসবের কিছু তুলে ধরা হল –

ইতির চোখে কোনো লাজ, লজ্জা, শরম নাই,থাইকলে ইতি কেমনে মানুষকে চোখ দেখায়?? কি ছবি দিয়ে পোস্ট করে,দেখলে দারিয়ে🖕যায়,ইতি এককারে অমানুষ, এতো পোলাইনের ঘুম নষ্ট কিল্লাই করোরি????😁😁😜

– Mohammad Naser

আজ 5 বছর পর আমার গার্লফ্রেন্ড ও তোর মতো প্রমাণ হলো । আর আমি তাহসান হয়ে গেলাম । তিন মাস পরে আমার বিয়ে করার কথা ছিল । ভাগ্য ভালো বিয়ের আগেই বেঁচে গেলাম ।

– AK Faisal

তোমার নাম বারো / এমন পিক চাই আরো // নাগরাজের রাগ মোচনের আহার / ১২ ভাতারির , ১২ রকমের বাহার //

– Shahed Anjum Mrinal

– অসাধারণ একটি ছবি! এই ছবির জন্য আপনি পেয়ে জাচ্ছেন কেয়া কসমেটিকস এর পক্ষ্য থেকে একটি পরিবেশ বান্ধব গাঞ্জার গাছ আর একটি ইয়াবা মেশিন🤣🤣

– Saikat Hossain Mehedi

– বেসম্ভব ভালো লাগার মতো একজন মানুষ,,তবে চরিএে একটু দোষ আসে,,

– Ahmed Rubel

প্রেম-বিয়েকে কেন্দ্র করে অসংখ্যবার সমালোচনার মুখে পড়েছেন মিথিলা। গত ২৪ আগস্ট মিথিলার একটি স্থিরচিত্রকে কেন্দ্র করে নেটিজেনদের সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন এই অভিনেত্রী। আবারো একই ঘটনার মুখোমুখী হলেন মিথিলা। বিতর্ক যেন তার পিছু কিছুতেই ছাড়ছে না। ভারতীয় বাংলা সিনেমার গুণী নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে রাফিয়াথ রশীদ মিথিলার সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর মনের লেনা-দেনা। এ জুটির সম্পর্ক নিয়ে জলঘোলা কম হয়নি। সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে গত ৬ ডিসেম্বর রেজিস্ট্রি বিয়ে করেন তারা। কলকাতায় সৃজিতের ফ্ল্যাটে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। বিয়েতে সৃজিত-মিথিলার পরিবারের ঘনিষ্ঠজনরা উপস্থিত ছিলেন।

তারপর গত ২৯ ফেব্রুয়ারি কলকাতায় বিবাহত্তোর সংবর্ধনার আয়োজন করেন সৃজিত। দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে। বিবাহত্তোর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের পর মিথিলা বাংলাদেশে চলে আসেন। আর সৃজিত তার সিনেমার শুটিংয়ের কাজে আফ্রিকায় যান। শুটিং শেষে সৃজিতের বাংলাদেশে আসার কথা ছিল। কিন্তু এরই মধ্যে শুরু হয় করোনা তাণ্ডব।