জেনে শুনেই বাল্য বিয়ে করতে এসেছিলো বর। বিয়ে বাড়িতে বেশ বড় ধরনের আয়োজনও ছিলো। খুব সখ ছিলো বিয়ে করে নতুন বউ বাড়িতে নিয়ে যাবে। প্রতিবেশিরা দেখবে। কিন্তু বউ নিয়ে বাড়ি ফেরা হলো না বরের। নতুন বউ কে ঘরে তোলার বদলে দিতে হলো জরিমানা। কারণ ৯৯৯ এ ফোন। তারপর আটক হলো বর-কনে।

ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের রানীগ্রাম এলাকায়।

শুক্রবার সন্ধায় ওই এলাকার মোঃ মিলন প্রাং এর অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া ১৩ বছরের মেয়ে মিম কে চাটমহর উপজেলার রওশন আলীর ছেলে মানিক(২৭) এর সাথে বিয়ে দিচ্ছিলো। বেশ ঘটা করেই আয়োজন করা হয়েছিলো। কিন্তু প্রতিবেশিরা ৯৯৯ এ ফোন করে বাল্য বিয়ের খবর দিলে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত ইউএনও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নাহিদ হাসান খান সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে বর-কনে কে আটক করে। পরে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে কনের বাবা কে ১৫ হাজার ও বরের বাবাকে ১৫ হাজার করে মোট ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না মর্মে ছাড়া হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নিলুফা ইয়াসমীন, গুরুদাসপুর থানার এসঅই লেবু,এসআই কালামসহ তার সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স।