সুন্দরী মেয়েরা নিজেদের আরো সুন্দর করতে যান, পার্লারে। কিন্তু সেই পার্লারে মেকআপের পর যদি চেহারা সুন্দরের বদলে পুড়ে যায়, তাহলে তো বিপদ। এমনি এক ঘটনা ঘটেছে ভারতের শিলচরের সারদা পার্লারে।

গুয়াহাটির বিনীতা নাথ ইতালি-র ইউনিভার্সিটি অফ রোমে পোস্ট ডক্টরেট করছেন। তিনি সম্প্রতি দেশে ফিরে পার্লারে গিয়েছিলেন নিজেকে একটু সুন্দর করতে। কারণ তিনি এক বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। এরপর পুড়ে গেল তার চেহারা।

বিনীতা নিজের ফেসবুকে লেখেন, তিনি সচরাচর পার্লারে যান না। কিন্তু একটি বিয়েতে যোগ দেবার জন্য তিনি ঠিক করেন, পার্লার থেকে নিজেকে একটু সুন্দর করতে হবে। তিনি পার্লারে যেয়ে বলেন আমি ফেসিয়াল করাব। কিন্তু পার্লার কর্তৃপক্ষ বলে, তার মুখে যেহেতু হালকা চুল আছে, তাই তাকে ব্লিচ করতে হবে। এরপর তিনি তাতে রাজি হয়ে যান।

এরপর পার্লার বিউটিশিয়ান তাকে একটি ফেসিয়ালের পর ব্লিচ করান। ব্লিচ করার সাথে সাথে তার মুখে জ্বালা শুরু হয়! তিনি যন্ত্রণায় চিৎকার করে উঠেন। এরপর তারা সঙ্গে সঙ্গে সেই ব্লিচের লেয়ারটা তার মুখ থেকে সরিয়ে ফেলে। এরপর তার মুখে আইসব্যাগ দেয়া হয়, কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছিল। এরপরে তার মুখে একাধিক পোড়া দাগ হয়ে যায়! দাগ ও ক্ষত এতটাই গভীর ছিল যে চিকিৎসকদের কাছে যেতে হয়।

বিনীতা জানান, মুলত ব্লিচের উপাদান বেশি বেশি করে দেবার কারণেই তার এই দশা। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন এগুলো সব পোড়ার দাগ। ওষুধ দিয়েছেন তবে বেশ কিছুটা সময় লাগবে এটা সারতে। তবে স্থায়ী দাগ হবার সম্ভাবনা আছে কিনা। তা ডাক্তার জানায়নি।

এদিকে অভিযুক্ত পার্লারের দাবি, তাদের মালিক ঐ সময় না থাকার ফলে এমন ঘটেছে। তবে তারা এই বিষটির জন্য লজ্জা প্রকাশ করেছেন ও ক্ষমা পোষণ করেছেন।