টাইম ম্যাগাজিনের পাতায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন আমিরকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। সেই সঙ্গে ভারতের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব রাহুল গান্ধী সম্পর্কেও লিখেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত হয়েছে A Promised Land নামে ওবামার লেখা উপাখ্যানের একটি অংশ। আর তাতেই রয়েছে ভ্লাদিমির পুতিন, রাহুল গান্ধী, সোনিয়া গান্ধী ও মনমোহন সিংয়ের নাম।ওই লেখায় রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনকে স্ট্রিট স্মার্ট বস হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন ওবামা।

সেখানে রাহুল গান্ধী সম্পর্কে আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা লিখছেন, “একজন নার্ভাস, অগোছালো ব্যক্তিত্ব। তিনি যেন একজন ছাত্র যে অনেক পড়াশোনা করেছেন ও শিক্ষকের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে আগ্রহী। কিন্তু তার তৎপরতার অভাব রয়েছে অথবা বিষয়টা বোঝানোর ক্ষমতা কম।”

শুধু রাহুল গান্ধী নন, সোনিয়া গান্ধীর নামও রয়েছে সেই লেখায়। ওবামা লিখেছেন, ‘আমরা শুধুই চার্লি ক্রিস্ট বা রাহম এমানুয়েলের মত হ্যান্ডসাম পুরুষদের কথা শুনেছি। কিন্তু রাজনীতিতে নারীদের সৌন্দর্য্যের কথা শুনিনি। অবশ্য ব্যতিক্রম সোনিয়া গান্ধী।

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের কথাও বলেন তিনি। তার কথায় মনমোহন সিং একজন অবিচল মানুষ। তার সঙ্গে প্রাক্তন মার্কিন ডিফেন্স সেক্রেটারির তুলনা করেন তিনি।

এর আগে ‘দারিদ্র থেকে প্রধানমন্ত্রীত্বে’ এই ভাষাতেই মোদির ভূয়সী প্রশংসা করে টাইম ম্যাগাজিনে প্রোফাইল লিখেছিলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তার মতে, মোদির এই জীবন কাহিনীতেই প্রতিফলিত হয়েছে ভারতের উত্থানের গতি ও সম্ভাবনা।

ওবামার লেখনীতে, “ছোট বেলায় বাবার সঙ্গে চা বিক্রি করে পরিবারকে সাহায্য করেছিলেন নরেন্দ্র মোদি। আর আজ তিনি পৃথিবীর বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশের মাথা। দারিদ্র থেকে প্রধানমন্ত্রিত্ব, মোদির জীবন থেকেই ভারতের অগ্রগতি ও সক্রিয়তার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে।”

ভারতের ভয়াবহ দারিদ্র দূরীকরণ, শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়ন, নারীদের সামগ্রিক কল্যাণ সাধনে মোদীর উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ওবামা।

সম্প্রতি বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী একশ’জন ব্যক্তিত্বের তালিকায় স্থান পেয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। তাকে ভারতের রিফর্মার-ইন-চিফ বলেও সম্বোধন করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

0000

আজকের জনপ্রিয়

0000