ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে মরিয়ম খাতুন (৬) নামের এক প্রতিবন্ধী কন্যাশিশুকে বাড়ির ছাদ থেকে ফেলে হত্যা করেছে পাষণ্ড পিতা হযরত আলী। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার সকালে কালীগঞ্জ উপজেলার চাপালী গ্রামে।

কালীগঞ্জ থানার এসআই কাজী আবুল খায়ের জানান, শনিবার সকালে বাবা হযরত আলী তার মেয়েকে প্রচণ্ড মারধর করে। এরপর মারতে মারতে নিজ বাড়ির ছাদে নিয়ে নিচে ফেলে দেয়। তাকে প্রথমে কালীগঞ্জ হাসাপাতালে নিয়ে গেলে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় নেওয়ার পথে দুপুরে আরিচা ফেরিঘাটে মেয়েটি মারা যায়। মেয়েটির পিতা শহরের একটি গ্যারেজ মালিক। বেশ কিছুদিন আগে গাড়ির টায়ার ফেটে তিনি বেশ আঘাতপ্রাপ্ত হন। এরপর থেকেই তিনি মানসিক রোগী হয়ে যান।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মুহা. মাহফুজুর রহমান জানান, শিশুটির পিতা মানসিক রোগী। সে তার মেয়েকে ছাদ থেকে ফেলে দেওয়ার ঘটনা স্বীকার করেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানা যাবে।