বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্ক করার পর বিয়েতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছিলেন এক প্রেমিক। এরপর সেই প্রেমিকের পুরুষাঙ্গ কেটে থানায় হাজির হয়েছেন প্রেমিকা।

সম্প্রতি ভারতের হাড়োয়ার খাডুবালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তবে প্রতিবেশীদের দাবি, অপর এক যুবকের সঙ্গে সম্পর্কের জন্য পুরনো প্রেমিককে এমন ‘শাস্তি’ দিয়েছেন ওই তরুণী। এ ঘটনার পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই যুবককে কলকাতার এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দেশটির সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, খাড়ুবালা গ্রামে পাশাপাশি বাড়ি মৌসুমী বিশ্বাস ও সুরজিতের। দীর্ঘদিন ধরেই তাদের সম্পর্ক। দুই পরিবারই সে কথা জানত।

তবে মৌসুমীর অভিযোগ, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সুরজিত একাধিকবার তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছেন। কিন্তু বিয়ের কথা উঠলেই এড়িয়ে যেতেন তিনি। তার জেরে ধরেই তিনি এই কাজ করেছেন বলে পুলিশের কাছে দাবি করেছেন তিনি।

অন্যদিকে, গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ত্রিকোণ প্রেমের জন্যই এই ঘটনা। সম্প্রতি মৌসুমী অন্য এক যুবকের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। তার জেরেই এই ঘটনা। রাতে সুরজিতকে বাড়িতে ডেকে তার পুরুষাঙ্গ কেটে দেন মৌসুমী। পরে ভোররাতে তা নিয়েই থানায় হাজির হন। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। মৌসুমীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।