তাদের প্রথম দেখা হয়েছিল ১৯৭৬ সালে ‘দো আনজানে’ ছবির সেটে। তখন থেকে পরিচয় এবং ক্রমে কাছাকাছি আসা। যদিও এই কাছাকাছি আসার বিষয়টি ভীষণ ভাবে অস্পষ্ট। কেউ বলেন দুজনের মধ্যে একটা সম্পর্ক ছিল আবার কেউ বলেন সম্পুর্ন গুজব। বুঝতেই পারছেন কাদের নিয়ে কথা বলছি। হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন কথা বলছি অমিতাভ এবং রেখাকে নিয়ে। এই দুজন একসময় বলিউড চর্চার কেন্দ্রে ছিলেন। তারপর তাদের নিয়ে রটে গুঞ্জন। কিন্তু যা রটে তার কিছু তো বটে। যাক সেসব নিয়ে আমাদের ভেবে লাভ নেই।

কিন্তু ভেবেছিলেন রেখা। সেসময় তাঁকে অনেক কিছু সহ্য করতে হয়েছিল কলিগ এবং বিভিন্ন মানুষজনের থেকে। অমিতাভ যে তাঁকে পাত্তা দেননি এই বিষয়ে কথা শুনতে হয়েছিল তাঁকে বারংবার। অবশেষে তিনি মুখ খোলেন ১৯৮৪ সালের ফিল্মফেয়ার অনুষ্ঠানে। সেখানে তিনি বলেন, অমিতাভ যা করেছেন তা নিজের স্ত্রী এবং পরিবারের জন্য করেছেন। তিনি যা করেছেন তা একদম ঠিক। রেখা সম্পুর্ন সমর্থন করেছিলেন অমিতাভকে। তাঁর মতে এটা সম্পূর্ণ তাঁদের ব্যক্তিগত ব্যাপার এখানে অন্য ব্যক্তির কথা বলার কোনো দরকার নেই।

রেখা আরো বলেছিলেন অমিতাভ কোনো মানুষের কষ্ট সহ্য করতে পারেননা তো তিনি নিজের স্ত্রীর কষ্ট সহ্য করবেন কীভাবে? এর থেকে পরিষ্কার বোঝাই যাচ্ছে লোকে যাই বলুক না কেন অমিতাভ-রেখা চিরকাল বলিউডের সেরা জুটি হয়ে থাকবেন।
তথ্য:- বলিউডশাদি.কম