বাড়ির পাশের দোকান থেকে ফেরার পথে দুষ্কৃতীদের গুলিতে মৃত এক তৃণমূল কর্মী। মৃতের নাম রহিম শেখ। শুক্রবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী থানার আমঝাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ভারতী মোড় এলাকায়। আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন তৃণমূল কর্মী। ইতিমধ্যেই ৫ অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে অভিযুক্তদের কঠোরতম শাস্তির দাবিতে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায় যুব তৃণমূলের একাংশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার সন্ধেয় কয়েকজন যুবকের সঙ্গে দোকান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন রহিম শেখ। সেই সময় তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় কয়েকজন দুষ্কৃতী। প্রায় আট থেকে দশ রাউন্ড গুলি চালানোর পর বোমা ছোঁড়া হয় তাঁদের লক্ষ্য করে। গুরুতর জখম হন রহিম শেখ ও তাঁর সঙ্গীরা। স্থানীয়দের নজরে পড়তেই তড়িঘড়ি রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁদের উদ্ধার করে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসকরা রহিমকে মৃত বলে ঘোষণা করে। চিকিৎসাধীন আহতরা।
সূত্রের খবর, রহিমের বুক- পেট মিলিয়ে সাতটি গুলি লেগেছিল। ঘটনার পর এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। অভিযুক্তের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লাশি। এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।
প্রসঙ্গত, রহিম শেখ নামে ওই যুবক যুব তৃণমূল কর্মী হিসেবে এলাকায় পরিচিত ছিল। তাই এই ঘটনার পেছনে তৃণমূলের অন্য গোষ্টীর হাত থাকতে পারে বলে মনে করছে দলের একাংশ। তবে পারিবারিক শত্রুতার জেরেও এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। কয়েকদিন আগে ওই এলাকায় দুষ্কৃতীদের গুলিতে মৃত্যু হয় এক তৃণমূল কর্মীর। সেই ঘটনায় হস্তক্ষেপ করতে হয় স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীকে। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ফের বাসন্তীতে খুনের ঘটনায় আতঙ্কে স্থানীয়রা।