ডিসেম্বরের শেষে পুরুলিয়ার বেগুনকোদরে তুষারপাত! শনিবার সকাল থেকেই ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে এমনই ছবি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে খড়ের গাদা ঢেকে ফেলেছে শ্বেতশুভ্র তুষার। পুরুলিয়াবাসীর মুখে মুখে ঘুরছে তুষারপাতের কথা। তুষারপাত দেখতে বেগুনকোদরে ভিড়ও জমাচ্ছেন অনেকেই। তবে পুরুলিয়ায় বর্তমানে যা আবহাওয়া, তাতে আদৌ সেখানে তুষারপাত সম্ভব? প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। কারও দাবি, ভুয়ো ছবি ছড়ানো হচ্ছে নেটদুনিয়ায়। তবে অনেকই আবার দাবি করেছেন তাঁরা স্বচক্ষে দেখেছেন বেগুনকোদরের তুষারপাত।

শনিবার সকাল থেকে পুরুলিয়ার বহুচর্চিত বেগুনকোদর এলাকায় তুষারপাতের কথা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। অনেকেই দাবি করেন, রাতেই তুষারপাত হয়েছে ওই এলাকার এক খড়ের গাদায়। অনেকেই সেই বরফ পরখ করে দেখেছেন বলেও দাবি করেন। ঘটনাস্থল ভূতুড়ে বেগুনকোদর হওয়ায় সহজেই অনেকে বিশ্বাস করে নেন তুষারপাতের কথা। অলৌকিক বিষয়ের যোগ রয়েছে বলে মনে করেন অনেকেই। তবে কেউ আবার তুষারপাতের ঘটনা আদৌ কতটা সত্য তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কারণ, বৈজ্ঞানিক তথ্য অনুযায়ী তাপমাত্রা ০ ডিগ্রিতে না নামলে তুষারপাত সম্ভব নয়। কিন্তু পুরুলিয়ার তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করছে ৬ ডিগ্রির আশেপাশে। তবে কীভাবে সেখানে তুষারপাত সম্ভব? এই তথ্যের উপর ভিত্তি করে অনেকেই দাবি করেন ইচ্ছাকৃত ভুয়ো ছবি ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে ইন্টারনেটে।

এ প্রসঙ্গে আবহাওয়াবিদ জিসি দেবনাথ জানান, বিষয়টি তুষারপাত নয়। তাঁর কথায়, “সম্ভবত খড়ের গাদার উপর জল পড়েছিল। তাপমাত্রা কম থাকায় সেই জল জমে গিয়েছে। কিন্তু ৬ ডিগ্রি তাপমাত্রায় জল জমে বরফে পরিণত হওয়া আদৌ সম্ভব কি? আবহাওয়াবিদের কথায়, অযোধ্যা পাহাড়ের কোলে অবস্থিত ওই এলাকার মাটি পাথুরে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ওই এলাকার মাটি তাড়াতাড়ি ঠান্ডা হয়ে যায়। মাটি অতিরিক্ত ঠান্ডা, সেইসঙ্গে তাপমাত্রার পারদ ৬ ডিগ্রির আশেপাশে, দুয়ের যোগে ঘটনাচক্রে জল জমতেও পারে। তবে তা কখনই তুষারপাত নয়।