ভারতের মাঠে রোহিত শর্মাদের হারিয়ে ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি তিন ফরম্যাটে অতীতে ভারতের মাঠে অজেয় ছিল বাংলাদেশ। সেই না পাওয়ার খড়া কাটালেন মুশফিকরা।

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম খেলায় ভারতকে ৭ উইকেটে পরাজিত করে বাংলাদেশ। দলের জয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন মুশফিকুর রহিম। তার ৬০ রানের দায়িত্বশীল ইনিংসে ভর করে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

তার আগে ভারতের বিপক্ষে প্রত্যাশার চেয়েও ভালো বোলিং করেছেন আমিনুল-আফিফর। এই তরুণদের অসাধারণ বোলিংয়ে ১৪৮ রানে গুটিয়ে যায় শক্তিশালী ভারত। সহজ টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়েন ওপেনার লিটন কুমার দাস।দলীয় ১০ রানে ফেরেন তিনি। এরপর অভিষিক্ত মোহাম্মদ নাইমকে সঙ্গে নিয়ে ৪৬ রানের জুটি গড়েন ওপেনার সৌম্য সরকার। ২৮ বলে ২৬ রান করে ফেরেন নাইম।

আফিফের ফিরতি ক্যাচে ফিরলেন দুবে : 

ভারতের হয়ে অভিষিক্ত ব্যাটসম্যান শিভব দুবেকে নিজের বলেই দুর্দান্ত ফিরতি ক্যাচে ফিরিয়েছেন আফিফ হোসেন। অভিষেক ম্যাচে দাবের ব্যাট থেকে এসেছে ৪ বলে ১ রান।

রান আউট হয়ে ফিরলেন ধাওয়ান : 

এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকা শিখর ধাওয়ান ৪১ রান করে রান আউট হয়ে ফিরেছেন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের করা ১৫তম ওভারের পঞ্চম বলটি লেগ সাইডে ঠেলে দিয়ে সিঙ্গেলের জন্য দৌড় দিয়েছিলেন তিনি। তবে তাঁকে মাঝ পথেই ফিরিয়ে দেন ঋষভ পান্ত। আর তাতেই রান আউট হয়ে যান ধাওয়ান।

বিপ্লবের দ্বিতীয় :  

একাদশ তম ওভারে বিপ্লবের উপর চড়াও হয়ে খেলতে গিয়ে নাঈম শেখের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন আইয়ার। তাঁর ব্যাট থেকে আসে ২২ রান।

বোলিংয়ে এসেই সফল বিপ্লব : 

পাওয়ার প্লের পরেই লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে বোলিংয়ে আনেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সফলও হয়েছেন। নিজের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে ১৫ রান করা রাহুলকে অধিনায়কের ক্যাচ বানিয়ে আউট করেছেন তিনি।

পাওয়ার প্লেতে ধুকল ভারত :  

শুরুতেই ওপেনার রোহিত শর্মাকে হারানোর পর ভারতের ইনিংস গড়ার চেষ্টা করছেন শিখর ধাওয়ান এবং লোকেশ রাহুল। শফিউল, আল আমিন এবং মুস্তাফিজদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে পাওয়ার প্লেতে হাতখুলে খেলতে পারছেন না ধাওয়ান-রাহুল।

শফিউলের শিকার রোহিত : 

ভারতের হয়ে ইনিংস শুরু করেন দুই ওপেনার রোহত শর্মা এবং শিখর ধাওয়ান। শফিউল ইসলামের করা প্রথম বলে চার মেরে রানের খাতা খোলেন রোহিত। ওভারের শেষ বলে রোহিতকে এলবিডব্লিউ বানিয়ে আউট করেন শফিউল।

নাঈম-দুবের অভিষেক : 

বাংলাদেশের হয়ে এই ম্যাচে অভিষেক হচ্ছে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান নাঈম শেখার। ২০১৯ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) দ্বিতীয় সর্বাধিক রান সংগ্রাহক ছিলেন এই তরুণ। আফগানিস্তান এবং জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের স্কোয়াডে থাকলেও তাঁর অভিষেক হয়নি সেবার।

বাংলাদেশের বিপক্ষে অভিষেক হচ্ছে ভারতের পেস বোলিং অলরাউন্ডার শিভম দুবের। ভারতের ৮৩তম ক্রিকেটার হিসেবে এই ফরম্যাটে অভিষেক হচ্ছে তাঁর। ভারতের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রীর কাছ থেকে টি-টোয়েন্টি ক্যাপ পেয়েছেন তিনি।