বছরের পর বছর ধরে সৎ বাবার লাম্পট্যের শিকার হয়েছেন এক তরুণী। আর এ ঘটনার প্রমাণ হিসেবে একটি ফোনকলের রেকর্ড আদালতে জমা দিয়েছেন তিনি।

৬৬ বছর বয়সী অভিযুক্ত ব্যক্তি অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে নিজের বাড়িতে সৎ মেয়েকে আট বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। মেয়ের বয়স সাত বছর থেকে শুরু করে ১৪ বছর হওয়া পর্যন্ত লাম্পট্য অব্যাহত থাকার অভিযোগ করেছেন ওই তরুণী।

একদিন সৎ মেয়েকে ফোন করে অভিযুক্ত বলেছেন, তুমি আমার কাছে অত্যন্ত সুন্দরী। সে কারণে নিজেকে সামলাতে পারিনি।

তিনি আরো বলেছেন, আমি এটিই সবচেয়ে বড় অপরাধ করেছি। আমি আমার অপরাধ স্বীকার করে নিচ্ছি। আমি জানি না যে, কিভাবে আমার মধ্যে এ ধরনের পশু সত্তা ঢুকেছিল।

তরুণী তাকে জিজ্ঞেস করেন, কেবল আমিই কি আপনার দ্বারা নির্যাতিত। অভিযুক্ত বলেন- হ্যাঁ।

তবে আদালত কেবল সেই রেকর্ড যথেষ্ট প্রমাণ হিসেবে মানবে কিনা, তা বিচারের পর জানা যাবে। সাত মাস আগে রেকর্ডটি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে জমা পড়লেও সম্প্রতি আটক হয়েছেন তিনি।

যৌন নিপীড়নসহ ১৩টি অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। জামিন চাইলেও অভিযুক্ত তা পাননি।

তরুণীর বক্তব্য, আমি বুঝতে পেরেছি এই সিস্টেম পুরোটা আমার পক্ষে নেই। তার যথাযথ বিচার হবে বলে মনে করি না। আমার শৈশবের সাতটি বছর ফিরিয়ে দেওয়ার কোনো উপায় আছে?

তিনি আরো বলেন, আমি কেবল স্বপ্ন দেখতাম- এমন একদিন আসবে, যখন আমি ঘরে নিশ্চিন্ত হয়ে ঘুমাতে পারবো। আর সেই ঘরে কোনো সাপ থাকবে না।

তিনি আরো বলেন, কেবল আমার সঙ্গে ঘটা অপরাধের বিচারের জন্য আদালতে আসিনি। অন্য কেউ যেন এ ধরনের অপরাধ করতে না পেরে, সেই ভীতি তৈরি এবং কেউ নির্যাতিত হলে যেন বিচার চাওয়ার শিক্ষা নিতে পারে, সেজন্য লড়ছি।

সূত্র : ডেইলি মেইল