চোর সন্দেহে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে এক যুবককে গাছের সঙ্গে বেঁধে অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে। ছাগল চুরির অপবাদ দিয়ে তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে প্লাস দিয়ে চেপে আঙুল ভেঙে দেওয়া হয়। এ ঘটনার একটি ভিডিও শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। 

নির্যাতনকারী কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল কলেজপাড়া গ্রামের মাছের পোনা ব্যবসায়ী হ্যাপি হোসেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। ঘটনার পর তিনি গা-ঢাকা দিয়েছে। 

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, যুবককে রশি দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে প্লাস দিয়ে তার হাতের আঙুল ভাঙছেন হ্যাপি। এসময় যুবকটির আর্তচিৎকারেও নির্যাতন থামেনি। পরে হ্যাপি যুবককে বলেন, ‘তোর দুইটা আঙ্গুল ভাঙছি, বাকিদের নাম না বললে সবগুলো আঙুল ভাঙবো, তার আগে ছাড়বো না। স্থানীয়দের বার বার নিষেধ সত্ত্বেও প্রায় দু’ঘণ্টা নির্যাতনের পর ওই যুবককে ছেড়ে দেন হ্যাপি।

এ বিষয়ে কামারখন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান শহিদুল্লাহ সবুজ বলেন, ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমরা দেখেছি। এটি খুবই বর্বর ও অমানবিক। কোনভাবেই এই ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। পুলিশকেও বিষয়টি তাৎক্ষণিক জানিয়েছি।

কামারখন্দ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম শনিবার সকালে জানান, ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখে পুলিশ হন্যে হয়ে নির্যাতনকারীকে খুঁজছে। নির্যাতিত যুবক ও নির্যাতনকারী হ্যাপিকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

0000

আজকের জনপ্রিয়

0000