নিখোঁজের পরদিন গতকাল শুক্রবার সকালে জয়পুরহাট সদর উপজেলার চকশ্যাম গ্রামের কবরস্থান থেকে শিশু ইরাম হোসেনের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সাড়ে চার বছর বয়সী ইরাম চকশ্যামের এনামুল হকের একমাত্র ছেলে। এ ঘটনায় হত্যার আলামতসহ পাশের উত্তর জয়পুর গ্রামের রেজাউল করিম (৩৫) ও তাঁর অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেকে (১৭) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পুলিশ বলেছে, গ্রেপ্তার দুজন হত্যার দায় স্বীকার করেছেন। ছেলেটি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইরামকে সে বাড়িতে নিয়ে যৌন নির্যাতনের চেষ্টা করে। ইরাম বাধা দিলে সে তাকে মেরে রক্তাক্ত করে গলা টিপে হত্যার পর ঘরে রাখে। রেজাউল বাড়িতে এসে ছেলের কাছে বিষয়টি জানতে পেরে বস্তায় ইরামের লাশ ভরে রাতে পাশের চকশ্যাম গ্রামের কবরস্থানে রেখে আসেন।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, প্রতিবেশী শিশুদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার বিকেলে খেলতে গিয়ে আর বাড়ি ফেরেনি ইরাম। পরে গ্রামে মাইকিংসহ অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে না পাওয়ায় সন্ধ্যায় তার বাবা জয়পুরহাট সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। গতকাল ভোর সাড়ে ৬টার দিকে চকশ্যাম গ্রামের লোকজন কবরস্থানের পাশে ইরামের বস্তাবন্দি লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পরে পুলিশ উত্তর জয়পুরের রেজাউলের বাড়ি থেকে ইরামের ব্যবহৃত স্যান্ডেল, রক্তমাখা কাপড় ও একটি বস্তা উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশ রেজাউল ও তাঁর ছেলেকে আটক করলে তাঁরা হত্যার দায় স্বীকার করে ঘটনার বর্ণনা দেন।

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি শাহরিয়ার খান বলেন, এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে।