করোনাভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার শুরুর দিকে মেক্সিকোতে আটকা পড়েন নিক এবং লিন্স ডে কোর্টে দম্পতি। ইউরোপে ফিরে যাওয়ার জন্য কোনো উপায় পাচ্ছিলেন না তারা।

নিক বলেন, আমরা সেখানে তিন মাস থেকেছি। তবে এটা খুব একটা মন্দ ছিল না। একটি বিচে নগ্ন হয়ে থাকতাম। ত্রিশোর্ধ্ব এই দম্পতি বেলজিয়ামের বাসিন্দা। উভয়েই প্রকৃতিপ্রেমী।

যেসব দেশে সম্ভব বিবস্ত্র অবস্থায় ভ্রমণের ইচ্ছা আছে তাদের। নিজেদের ঘুরে বেড়ানোর ভিডিও ও ছবি অনলাইনে পোস্ট করেন তারা। ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টেও সেসব ছবি ও ভিডিও দিয়ে অন্যদের অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা করেন।

হন্ডুরাসের উতিলা আইল্যান্ডে তারা বিবস্ত্র হয়ে স্কুবা ডাইভে গেছেন। পর্তুগাল থেকে শুরু করে অ্যামাজনে তারা বিবস্ত্র হয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন।

তিন মাস আটকে থাকার পর ইউরোপে গত জুলাইয়ে পৌঁছাতে পেরেছেন তারা। এরপর ফ্রান্সে ঘুরেছেন, সেখানে বহু ন্যাচারিস্ট রয়েছেন। তাদের সঙ্গে বেশ ভালো সময় কাটানোর কথা জানিয়েছেন নিক।

জানা গেছে, নগ্ন হয়ে ঘুরে বেড়ানোর ছবি ও ভিডিও অনলাইনে পোস্ট করাটাই তাদের পেশা। তবে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে নগ্নতার ব্যাপারে কঠোর নিয়ম রয়েছে। এজন্য বেশ সমস্যায় পড়তে হয় তাদের। বিভিন্ন কায়দা করে এসব নিয়ম এড়াতে হয় নিক-লিন্স দম্পতির।

সূত্র : সিএনএন

0000

আজকের জনপ্রিয়

0000