ক্রিকেটের ক্ষুদে ফরম্যাটে বরাবরই ভালো দল পাকিস্তান। এই ফরম্যাটে একবার বিশ্বকাপও জিতেছে দেশটি। বর্তমানে আইসিসির টি-২০ র‌্যাংকিংয়েও শীর্ষে অবস্থান করছে পাকিস্তান। অনেক আলোচনা-সমালোচনা, বাধার দেয়াল ঠেলে অবশেষে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। যেখানে স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলবে টাইগাররা।

টি-২০ র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান নয় নম্বরে। তার পরও ঘরের মাঠে পাকিস্তানকে হারানোর টার্গেট নিয়েই যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। গতকাল আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে সিরিজ জয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশের টি-২০ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার না থাকলেও এই সিরিজে ভালো কিছুই আশা করছেন তিনি।

গত নভেম্বরে দিল্লিতে সিরিজের প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী ভারতকে টি-২০ তে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। সিরিজ হারলেও ভারতের মাটিতে ভারতকে হারানোর কৃতিত্ব দেখিয়েছে টাইগাররা। এদিকে র‌্যাংকিংয়ের চূড়ায় থাকলেও পাকিস্তান সর্বশেষ সিরিজে দেশের মাটিতেই টি-২০ সিরিজে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরেছিল।

তাই র‌্যাংকিংয়ের ব্যবধান থাকলেও মাহমুদউল্লাহ আত্মবিশ্বাসী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজ জেতা সম্ভব। গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘র‌্যাংকিং তো ভিন্ন কথা বলে। আমরা নয় নম্বরে, ওরা এক নম্বরে। টি-টোয়েন্টিতে তারা ধারাবাহিকভাবে খেলে আসছে। আমার মনে হয় যেভাবে আমরা ক্রিকেট খেলছি শেষ কয়েকটি সিরিজে, আমি খুব আশাবাদী যে ভালো কিছু ম্যাচ আমরা উপহার দিতে পারব। ইনশাআল্লাহ্? আমরা সিরিজ জেতার চেষ্টা করব।’

শ্রীলঙ্কার কাছে পাকিস্তানের হার নিয়ে ভাবতে চান না মাহমুদউল্লাহ। গতকাল বাংলাদেশের অধিনায়ক বলেছেন, ‘শেষ কয়েকটা সিরিজে পাকিস্তান হয়তো খারাপ করেছে। আমি মনে করি তারা অনেক শক্তিশালী দল টি-টোয়েন্টিতে। তাদের ওখানে খেলা। শেষ সিরিজে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে হেরেছে তারা। তারা হয়তো এই বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত আছে। আমাদের ফোকাস করতে হবে আমরা কতটা ভালো খেলতে পারি।’

নিজেদের সেরাটা দেওয়ার দিকেই মনোযোগী বাংলাদেশ দল। মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘আমি মনে করি এই টিমে যারা আছে তারা ভালো ফর্মে আছে। ভালো টাচে আছে। এই জিনিসটা আমাদের ব্যবহার করা এবং বোঝা, যদি সেরা ক্রিকেট খেলতে পারি আমরা জিততে পারব। ওরা কী করেছে শেষ সিরিজে, এটা নিয়ে যদি চিন্তা করি, র‌্যাংকিংয়ে কোথায় আছে, আমি মনে করি না চিন্তার কিছু আছে। আমাদের ক্রিকেটটা আমরা কীভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি, কীভাবে নিজেদের সঠিক ব্যবহার করতে পারি, ব্যক্তিগতভাবে এটা নিয়ে ভাবা আমি মনে করি জরুরি।’

পাকিস্তান সফরের বাংলাদেশ দলে আছেন পাঁচ পেস বোলার। স্বীকৃত স্পিনার বলতে শুধু আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। পেস বোলিং ইউনিট নিয়ে বেশ খুশি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘আমাদের পেস বোলিংয়ের দারুণ বৈচিত্র্য আছে। আমি এদিক থেকে আশাবাদী যে, ওরা ডেলিভার করতে পারবে এবং আমি সেটা নিয়ে চিন্তিত নই যে আমাদের ভালো স্পিনার আছে কি, নেই। এবার আমাদের পেস বোলিং সাইডটা হয়তো অনেক বেশি অভিজ্ঞ এবং আমি তাদের ওপর আস্থা রাখব।’ উল্লেখ্য, তিনটি টি-২০ ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে লাহোরে। আগামী ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি তিন ম্যাচের সিরিজ খেলে ফিরে আসবে বাংলাদেশ দল। তিনটি ম্যাচই শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায়।