মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করার অভিযোগে হারিস মিয়া (৫৫) নামের এক বৃদ্ধকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় অভিযুক্তকে বাড়ি থেকে আটক করা হয়। পরে শুক্রবার দুপুরে আটক হারিস মিয়াকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। ঘটনাটি ঘটে ২৮ নভেম্বর সকালে পতনউষার ইউনিয়নের ধোপাটিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন দোকানে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই ছাত্রী স্কুলে এসে একটি কলম কিনতে দোকানে যায়। দোকানে গেলে দোকানি হারিস শিশুটিকে দোকানটির ভিতরে নিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দেয়। তখন মেয়েটি চিৎকার দিয়ে স্কুলে ছলে আসে এবং কান্নাকাটি করে প্রধান শিক্ষিকার কাছে ঘটনাটি বলে।

এই ঘটনায় স্কুলের সভাপতিসহ স্থানীয়দের জানান প্রধান শিক্ষিকা। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই শিশুটির বাবা কমলগঞ্জ থানা পুলিশকে জানালে রাত সাড়ে ৮টায় দোকানি হারিসকে বাড়ি থেকে শমসেরনগর ফাঁড়ি পুলিশ গ্রেপ্তার করে। রাত সাড়ে ১০টায় কমলগঞ্জ থানায় শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করা হয়।

প্রধান শিক্ষিকা দিলারা বেগম বলেন, ওই শিশুটি দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী। দোকানদার শিশুটিকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা চালায় বলে ছাত্রী আমাকে জানায়।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রাতে অভিযুক্তকে আটক করা হয়। পরে আজ দুপুরে কোর্টে প্রেরণ করা হয়।