সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার দায়ে স্বামী রঞ্জন মন্ডলকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে এ রায় দেন সাতক্ষীরার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক হোসনে আরা আক্তার। রায়ের সময় পলাতক ছিলেন দণ্ডপ্রাপ্ত রঞ্জন মন্ডল।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর জহুরুল হায়দার বাবু বলেন, তালা উপজেলার বারাত গ্রামের নিমাই চন্দ্র দাশের মেয়ে স্বপ্না রানী মন্ডলের সঙ্গে কলারোয়া উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের তৈলকুপি গ্রামের রবিন মন্ডলের ছেলে রঞ্জন মন্ডলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য স্ত্রী স্বপ্না রানী মন্ডলকে নির্যাতন করতেন স্বামী রঞ্জন মন্ডল।

তিনি বলেন, ২০১২ সালের ৯ মার্চ ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেন রঞ্জন মন্ডল। এ ঘটনায় নিহতের ভাই শিবপদ দাস বাদী হয়ে ছয়জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের এসআই গোলাম সরোয়ার ২০১২ সালের ১১ জুলাই স্বামী রঞ্জন মন্ডলের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দেন। নয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে রঞ্জনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পাশাপাশি দুই লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দেন বিচারক।