আয়ানা উইলিয়ামসের যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের বাসিন্দা। তিনি ২০১৭ সালে প্রথমবারে মতো গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েছিলেন তার বিশাল নখের জন্য। রেকর্ড গড়ার পরো তনি তার নখ রেখেছিলেন। আর সেই নখের সাইজ আরো বড় হয়ে গিয়েছিল। আয়ানা ৩০ বছর ধরে নখ কাটেননি।

সম্প্রতি গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড আয়ানার নখের ব্যাপারে বিস্তারিত তুলে ধরেছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে আয়ানার আয়ানার ডান হাতের নখের দৈর্ঘ ছিল ১১ ফুটের কিছু বেশি আর ডান হাতে নখের দৈর্ঘ্য ছিল ১২ ফুটের বেশি। আর সব মিলিয়ে তার নখের মোট দৈর্ঘ্য ছিল ২৪ ফুট সাত ইঞ্চি।

আয়ানা তার এই নখ নিয়ে খুবই খুশী ছিলেন এবং তিনি নিজেকে একজন ভাগ্যবতী মনে করতেনে। সে ১৯৯০ সাল থেকে তার এই নখ রেখে আসছে। আর এরপর থেকে এই দীর্ঘ ৩০ বছর সে একবারো তার নখ ছোট করেনি। সে তার এই নখের অনেক যত্নও করত। তার এই একবার নেইল পালিশ করতে ২ বোতল নেইল পালিশ লাগত। এমনকি সে তার এই নখে ম্যানিকিউর করাত। যা করতে তার সময় লাগত কমপক্ষে ১৮ ঘন্টা।

এরপর আয়ানা সিদ্ধান্ত নেয়, সে তার এই স্বপনের নখগুলি কেটে ফেলবে। তাই সে তার নখ কাটার জন্য এক ধরনের বিশেষ ইলেকট্রিক যন্ত্র ব্যবহার করে। আয়ানার এই সাধের নখ কাটার ভিডিও আয়ানা ধারণ করে। আর পরে এই ভিডিওটি ব্যপক হারে ভাইরাল হয়।

আরো জানাগেছে, আয়ানার এই বড় বড় নখগুলি ফ্লোরিডার অরল্যান্ডোর রিপলির বিলিভ ইট বা নট জাদুঘরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে সেই নখের প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। লোকজন আয়ানার এই বৃহৎ নখ দেখে রীতিমত অবাক। আর আয়ানাও তার নখ দেখিয়ে ভীষণ খুশি ও গর্বিত। আর সে নিজেকে রানী ভাবা শুরু করেছে।