ইচ্ছে ছিল আলিয়া ভাটের সঙ্গে রণবীরের বিয়েটা শিগগিরই দিয়ে দেবেন। রণবীর-আলিয়ার সংসার বসানোর জন্য বার বার আগ্রহী হয়েছেন কিন্তু ব্যাস্ততা, নিজের অসুস্থতা, লকডাউন, সবকিছুর জেরে পরপর পেছাতে থাকে ঋষি কাপুরের ছেলের বিয়ে। ঠিক হয়, ব্রক্ষ্মাস্ত্র মুক্তির পরপরই রণবীর-আলিয়ার চার হাত এক করে দেবেন কাপুর-ভাটরা। সেই ইচ্ছা অপূর্ণই রয়ে গেল ঋষির। ছেলের বিয়ে না দেখেই চলে যেতে হলো তাঁকে।

রণবীরের সঙ্গে আলিয়ার সম্পর্কের অনেক আগে থেকেই নিজের মেয়ের মতো করে ভালোবাসতেন মহেশ ভাট-কন্যাকে। ফলে তাঁর ছেলের সঙ্গে যেখন আলিয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে, তখন খুশিতে ডগমগ হয়ে ওঠেন ঋষি। সেই কারণেই এবার ঋষি কাপুরের মৃত্যুতে নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি আলিয়া ভাট। 

ঋষির মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরই মুম্বইয়ের এইচএন হাসপাতালে ছোটেন আলিয়া। জানা যায়, হাসপাতালে পৌঁছেই নাকি কান্নায় ভেঙে পড়েন আলিয়া।

এদিকে চন্দনওয়াড়ি শশ্মানেই হবে প্রয়াত অভিনেতার শেষকৃত্য। লকডাউনের মধ্যে সব নিয়ম মেনেই ঋষির শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে বলে কাপুর পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। জিনিউজ