বার্সেলোনা ছেড়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলতে চলেছে মেসি

3 second read
0
0
97

মেসি বনাম রোনাল্ডো, পিকে বনাম ব়্যামোস- বিশ্বের সেরা ডার্বিগুলির নিয়ে আলোচনা হলে তাতে উপরের দিকেই নাম থাকবে ‘এল ক্লাসিকো’-র। অর্থাৎ বার্সেলোনা বনাম রিয়াল মাদ্রিদ দ্বৈরথ। কিন্তু সেই এল ক্লাসিকোই এবার ঘোর সংকটে। স্পেনে, নাকি স্পেনে নয়? গোটা কাতালুনিয়া জুড়ে এখন এই একটাই প্রশ্ন। আর এর সঙ্গেই জুড়ে আছে বার্সেলোনার লা লিগায় খেলার ভবিষ্যৎ। কারণ স্পেন থেকে আলাদা হয়ে গেলেই স্পেনের লিগে বার্সার খেলায় নেমে আসবে ঘোর অনিশ্চয়তা। তবে কাতালুনিয়ার ক্রীড়ামন্ত্রী জেরার্ড ফুয়েরাসের বক্তব্য অনুযায়ী, ইতালি-ফ্রান্স কিংবা অন্য কোনও দেশের লিগে খেলবে বার্সেলোনা। এমনকী ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেও খেলতে দেখা যেতে পারে মেসিদের।

দীর্ঘদিন ধরেই স্পেন থেকে আলাদা হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে এসেছে কাতালুনিয়া। মাঝে একটি ভোটাভুটিও হয়েছিল। কিন্তু, তার ফলাফলকে স্থানীয়রা মানেন না। কারণ, গোট কাতালুনিয়া যখন স্পেনে থাকতে চাইছে না, তখন কী করে ভোটের ফল বিলকুল অন্যরকম হয়?
সেজন্যই এই রবিবার আরেক দফা ভোটাভুটি। যদিও স্পেন সরকারের মতে এটা আইনবিরুদ্ধ। সুতরাং, ভোটের ব্যবস্থা হলে স্পেনীয় পুলিশ ব্যালট বক্স বাতিল করার চেষ্টা করবে, এমনই খবর। অর্থাৎ, ঘোর গণ্ডগোলের আশংকা কাতালুনিয়ার রাজধানী শহর বার্সেলোনায়। এদিকে, স্প্যানিশ লা লিগায় কাতালুনিয়ার তিনটি দল খেলে-বার্সেলোনা, এসপানিওল এবং জিরোনো। স্পেনীয় পুলিশ জোর করে ভোটদানে বাধা দিলে গণ্ডগোল বাড়বে, এটা গ্যারান্টি। ফলে আজ না হয় কাল ভোট নাকি হতেই হবে। এমনটাই বলেছেন কাতালুনিয়ার ক্রীড়ামন্ত্রী জেরার্ড ফুয়েরাস।

অন্যদিকে, আবার স্পেন থেকে যদি কাতালুনিয়া আলাদা হয়, সেক্ষেত্রে লা লিগায় যে জায়গা পাকা নয় বার্সেলোনার, সেটা স্প্যানিশ ফুটবল সংস্থার কর্তারা আগেই বলে দিয়েছেন। তা হলে কী হবে? এ ব্যাপারে ফুয়েরাস শুক্রবার বলেন, “এটা সংশ্লিষ্ট দলগুলির উপরই ছেড়ে দেওয়া হবে। কেউ যদি স্প্যানিশ লিগে খেলতে চায়, আমাদের আপত্তি নেই। তবে লা লিগা কতৃর্পক্ষ রাজি হবে কিনা, সেটা একটা বিষয়। সেক্ষেত্রে ইতালি, ফ্রান্স বা প্রিমিয়ার লিগেও খেলার সম্ভাবনা আছে। স্পেনেও অন্য দেশের ক্লাব খেলে। ফ্রান্সে যেমন খেলে মোনাকো। আমাদের হাতে যদি সুযোগ থাকে তা হলে বলব ইংল্যান্ডের প্রিমিয়ার লিগে খেলার ভাল সুযোগ আছে।”

কাতালুনিয়ার এই স্বাধীনতা আন্দোলনের ব্যাপারটা স্পেন সরকারে কাছেও একটা স্থায়ী মাথাব্যথার বিষয়। তাদের তরফে লা লিগা কতৃর্পক্ষকে নাকি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এভাবে জোর করে নিজেদের স্বাধীন ঘোষণা করা কোনও দেশের ক্লাবকে যেন লা লিগায় খেলতে না দেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে এখনই বার্সার অস্তিত্ব সংকটে। তবে উলটোদিকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে যদি লিওনেল মেসি-জেরার্ড পিকেরা খেলতে নামেন, তাহলে আখেরে লাভ হবে ইংল্যান্ডেরই। কারণ অবশ্যই বার্সেলোনার জনপ্রিয়তা এবং তারকা ফুটবলাররা।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *