মা পাঠিয়েছি’লেন ছেলেকে বাজার করতে। ফিরে আসার সময় ছে’লে যা নিয়ে এলো তা নিয়ে রীতিম’তো হৈচৈ পড়ে গেছে ভার’তের উত্তর প্রদেশে। সংবাদ সংস্থা’ এএনআই জানি’য়েছে, বাজার ফেরত ওই যুবক বাজা’রের বদলে বউ নিয়ে বাড়ি ফি’রেছিলেন। ঘটনাটি ভার’তের উত্তরপ্র’দেশের গাজিয়া’বাদের সাহিবাবাদ নামের একটি শ’হরের।

এএন’আই’র ওই প্রতিবে’দন জানা যায়, বুধবার (২৯ এপ্রিল) সাহি’বাবাদ থানায় এক নারী গিয়ে অভিযোগ ক’রে বলেন, লকডাউ’নের মধ্যে ছেলে গুড্ডুকে (২৬) বাজা’র করতে পাঠিয়েছি’লেন। কিন্তু ছেলে বউ নিয়ে বাড়ি ফিরে’ছে। তিনি এখন এই সম্পর্ক মেনে নেওয়া’র অবস্থায় নেই। এমন অভিযো’গ হতভম্ব হয়েছিল থানা’র পুলিশও।

পরে গুড্ডু জানানা, দুই মাসে আগে তিনি সাবি’ত্রী নামে ওই মেয়েকে হরিদ্বা’রে আর্য মন্দিরে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু সাক্ষী’র অভাবে তখন তারা ম্যারেজ সার্টিফি’কেট পাননি। তখন ঠিক করেন, পরে হরিদ্বার গিয়ে সার্টিফিকে’ট নিয়ে আসবেন। কিন্তু ততক্ষণে লকডা’উন শুরু হয়ে যায়।

হরিদ্বা’র থেকে ফিরে স্ত্রী সাবিত্রী’কে দিল্লির একটি ভাড়া বাড়ি’তে রেখেছিলেন গুড্ডু। ভেবেছিলেন, সময় ও সুযো’গ মতো বাড়ি নিয়ে আসবেন। কিন্তু লকডা’উন চলায় তা আর হয়ে ওঠেনি। ভেস্তে যায় সেই পরিক’ল্পনা। অপরদিকে নেমে আসে ম’রার ওপর খাঁড়ার ঘা। সাবিত্রী যে বাড়ি’তে ভাড়া থাকতেন সেই বাড়ি’র মালিক বাড়ি খালি করতে বলে দেন। তাই বাধ্য হয়ে তিনি সাবিত্রী’কে নিজের বাড়ি’তে নিয়ে আসেন।

পরে বেঁকে সবা গুড্ডুর মাকে নিয়ে বিপদে পড়ে যাওয়া সাহিদাবাদ থানা পুলিশ অবশ্য একটি সমাধানের ‍উপায় খুঁজে বের করে। তারা সাবিত্রীর ওই বাড়ির মালিককে অনুরোধ করেন তাকে যেন লকডাউন চলা অব্দি ভাড়ার বাড়িতে থাকতে দেওয়া হয়।