যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর একটি যুদ্ধ জাহাজকে দক্ষিণ চীন সমুদ্র থেকে এ সপ্তাহে বিতাড়িত করার দাবি করেছে চীন। দেশটির সেনাবাহিনী জানায়, ‘ইউএসএস ব্যারি’ নামক ওই জাহাজটি গত সপ্তাহে অবৈধভাবে চীনের ঝিশা জলসীমায় ঢুকে পড়ে। তবে বিষয়টি অস্বিকার করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা।

চীনা সেনাবাহিনীর মুখপাত্র লি হুয়ামিন এক বিবৃতিতে বলেন, ‘চীনের দক্ষিণাঞ্চলীয় থিয়েটার সেনা কমান্ড (চীনের নৌ ও বিমান বাহিনীর একটি সমন্বিত দল যারা ওই অঞ্চলে আমেরিকান জাহাজ মনিটরিং ও চিহ্নিত করার কাজে নিয়োজিত) যুক্তরাষ্ট্রের নৌ বাহিনীর একটি জাহাজ দেখতে পায় এবং সেটিকে সতর্ক করে ও বিতাড়িত করে।’ 

তিনি আরো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের উসকানিমুলক আচরণ আন্তর্জাতিক আইন ও নিয়ম-নীতি লংঘন করছে। চীনের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তা ব্যাপকভাবে লংঘন করছে। কৃত্রিমভাবে আঞ্চলিক নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি করছে। এতে যে কোন সময় অনাকাংখিত ঘটনা ঘটে যেতে পারে।’ 

তবে চীনের এ বক্তব্যকে অস্বীকার করে গত শুক্রবার পেন্টাগনের মুখপাত্র জন সাপল এক ইমেইল বার্তায় বলেন, ‘সেখানে আমেরিকান দুটি নৌ জাহাজ  সফল ফ্রিডম অব ন্যাভিগেশন কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। তার মধ্যে অন্যতম ছিল মিসাইল ধ্বংসকারী ইউএসএস ব্যারি। দুটি জাহাজই আমাদের পছন্দমত সময়ে কার্যক্রম শুরু করে শেষ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ জাহাজকে দক্ষিণ চীন সমুদ্র থেকে বিতাড়িত করার প্রশ্নই আসে না।’

সূত্র: এনবিসি নিউজ