হাসপাতালের গেট বন্ধ। ভেতরে ঢোকার উপায় নেই। তাই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৯ জন রোগীকে অপেক্ষা করতে হলো ফুটপাতে বসে। পরে অবশ্য চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্য কর্মীরা এসে তাদের নিয়ে যান ও ভর্তি করান করোনা চিকিৎসায় নির্ধারিত ওয়ার্ডে।

এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এমন অদ্ভূত ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের ইটাওয়াহ জেলার সাইফাইয়ে অবস্থিত মেডিকেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়ে।

গত বৃহস্পতিবার উত্তর প্রদেশের আগ্রা জেলার একটি হাসপাতাল থেকে ৬৯ জন করোনা আক্রান্তকে মেডিকেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানান্তর করা হয় উন্নত চিকিৎসার জন্য। কারণ ওই অঞ্চলে মেডিকেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালটিই সবচেয়ে বড় ও আধুনিক।

১১৬ কিলোমিটার দূর থেকে একটি বাসে করে নিয়ে আসা হয় ৬৯ জন করোনা আক্রান্তকে। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে তাদের হাসপাতালে ভর্তি না করিয়ে বন্ধ গেটের বাইরে ফুটপাতে বসিয়ে রাখা হয়।

স্থানীয় কয়েকজন বিষয়টি মোবাইলে ভিডিও করেন। এক পর্যায়ে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ফুটপাতের ওপর রোগীরা বসে আছেন। সবাই মুখে শুধু একটি মাস্ক পরে আছেন। সুরক্ষা উপকরণ পরিহিত দুই পুলিশ সদস্যকে দেখা গেছে রোগীদের দূরত্ব বজায় রেখে বসানোর দায়িত্ব পালন করতে।

কিছুক্ষণ পর পুলিশের আরেক কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তিনি রোগীদের বলেন, ‘খুব শিগগির হাসপাতালের দায়িত্বপ্রাপ্তরা এখানে আসবেন। কিন্তু আপনারা যদি আশপাশে ঘোরাঘুরি করেন তাহলে অন্যরাও করোনায় আক্রান্ত হতে পারে। আপনারা যে আসছেন এ তথ্য আগে থেকে আমাদের জানা ছিল না।’

একই অভিযোগ করেছেন মেডিকেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডা. রাজ কুমার। তিনি বলেন, যোগাযোগ ঘাটতির কারণেই এমন অপ্রীতিকর পরিস্থির সৃষ্টি হয়েছে। তবে প্রস্তুতি সম্পন্ন করে কিছুক্ষণ পরই রোগীদের হাসপাতালের ভেতর নিয়ে যাওয়া হয় বলে জানান তিনি।