রাজস্থানের সাওয়াই মাধুপুর জেলায় সংঘবদ্ধ ধ’র্ষণের শি’কার হন এক নারী। লকডাউনে আ’টকে পড়েছিলেন বাড়ির অদূরে। প্রায় একমাস সেখানেই ছিলেন। বৃহস্পতিবার তিনি ঠিক করেন হেঁটেই ফিরবেন জয়পুরের বাড়িতে। সেই মতো বেরিয়েও হাঁটাও শুরু করেন। কিন্তু বিকেল হয়ে যাওয়ায় তিনি রাস্তাও হা’রিয়ে ফেলেন।

স্থানীয়দের জিজ্ঞেস করায় তারা বলে গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়টি আপাতত ফাঁ’কা। সেখানেই ওই মহিলা রাত কা’টাতে পারেন। গ্রামবাসীদের সন্দে’হ হয়েছিল ওই মহিলা করোনায় আক্রা’ন্ত। তাই তাকে আলাদা রাখতেই স্কুলে রাত্রিবাসের কথা বলে। এমনকি তার খাবারেরও ব্যবস্থা করে। রাতের দিকে স্থানীয় তিন যুবক এসেই ধ’র্ষণ করে ৪০ বছরের সেই নারীকে।

পরদিন সকালে স্থানীয় থানায় অভিযো’গ দায়ের করেন ওই নারী। যে স্থানীয়রা তাকে গণধ’র্ষণ করে তাদের সবারই বয়স ২০ এর নীচে। বাটোদা থানা এবং প্রশাসনের তরফে ওই মহিলাকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তিনি কোভিড-১৯ আক্রা’ন্ত কিনা তা দেখতে টেস্টও করা হয়েছে। এছাড়াও তার মেডিক্যাল পরীক্ষা হয়েছে।

তার মেডিক্যাল পরীক্ষার এখনও রিপোর্ট আসেনি। পুলিশের সন্দে’হ গণধ’র্ষণের অভিপ্রায় নিয়েই যুবকেরা তাকে স্কুলের স’ন্ধান দেন। মহিলার অভিযো’গের ভিত্তিতে তাদের খোঁ’জে তল্লা’শি চালাচ্ছে পুলিশ।