মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সামনে থেকে লড়ছেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। করোনা রোগীর সেবা দেওয়ার জন্য দরকার মাস্কসহ ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম বা পিপিই। কিন্তু একাধিকবার আবেদন সত্ত্বেও তা না পেয়ে নগ্ন হয়ে প্রতিবাদ করেছেন জার্মানির একদল চিকিৎসক।

নগ্ন হয়ে তাদের এই প্রতিবাদকে ‘ব্লাংকে বেডেকেন’ নাম দেওয়া হয়েছে বলে গতকাল মঙ্গলবার একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

জার্মানির ওই চিকিৎসক দল বলছেন, সুরক্ষা সরঞ্জাম ছাড়া করোনা রোগীদের সেবা দেওয়া নগ্নতারই সমান। তাই মাস্ক ও পিপিই না পেয়ে সম্পূর্ণ নগ্ন হয়ে প্রতিবাদের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। তাদের মতে, ‌‘আমরা কতটা অরক্ষিত সেটা সরকারকে বোঝাতেই এই নগ্নতা।’

তাদের মধ্যে অনেকে পোশাক ছেড়ে শরীর ঢেকেছেন প্রেসক্রিপশনে। কেউ রোগীর রেকর্ড ফাইলে তো কেউ আবার লজ্জা লুকিয়েছেন মেডিকেল ইনস্ট্রুমেন্টের আড়ালে। এই প্রতিবাদের নাম দেওয়া হয়েছে, ‘ব্লাংকে বেডেকেন’ বাংলায় তর্জমা করলে যার অর্থ দাড়ায় ‘নগ্ন সংশয়’।

ব্যতিক্রমী উপায়ে প্রতিবাদ জানানো ওই চিকিৎসকদের অভিযোগ, জার্মানিতে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর অর্থাৎ জানুয়ারির শেষ থেকে সরকারের কাছে সুরক্ষা সরঞ্জাম চেয়ে আসছেন তারা। কিন্তু তিন মাস কেটে গেলেও তা পর্যাপ্ত পরিমাণে পাচ্ছেন না চিকিৎসকরা। আর তাই অভিনব এমন প্রতিবাদের পথ বেছে নিয়েছেন তারা।

তবে প্রতিবাদ করার সঙ্গে সঙ্গে তারা এটাও স্পষ্ট করেছেন যে, তারা রোগীদের চিকিৎসা অবশ্যই করতে চান এবং করবেন। কিন্তু তাদের প্রয়োজনীয় সুরক্ষার ব্যবস্থার দায়িত্ব অবশ্যই সরকারকে নিতে হবে। প্রসঙ্গত, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) সংকটে সমালোচনার মুখে বেশির ভাগ দেশের সরকার।