করোনার দাপটে কাঁপছে সারা বিশ্ব। প্রতিদিন সারা বিশ্বে হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে বলা হচ্ছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি পাঁচজনের মধ্যে একটি শিশু অভুক্ত রয়েছে। একটি সমীক্ষায় এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে এলো।

ব্রুকিং ইনস্টিটিউশনের সমীক্ষায় এও বলা হয়েছে মোট জনসংখ্যার ১৭ দশমিক ৪ শতাংশ মা এবং তাদের ১২ বছরের কম বয়সী ছেলেমেয়েরা অর্থের অভাবে পর্যাপ্ত দৈনিক খাবার পাচ্ছেন না। সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, পর্যাপ্ত পরিমাণে খাদ্য তো মিলছেই না তার সঙ্গে কোনো কোনো ঘরে শিশুরা একবেলা খেয়েই দিন কাটাচ্ছে।

গবেষণা দলের প্রধান লওরেন বউর জানিয়েছেন, ঘরে ঘরে খাদ্যসঙ্কট ২০১৮ সালের তুলনায় ১৩০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এখন। সমীক্ষায় যে তথ্য হাতে মিলেছে তা থেকে স্পষ্ট, ২০০৮ সালের অর্থনৈতিক সঙ্কটের থেকেও খারাপ পরিস্থিতি এই মুহূর্তে। 

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা সংক্রমণের জেরে কাজ হারিয়েছেন প্রায় তিন কোটি মানুষ। যার জেরে বাড়িতে নেই পর্যাপ্ত খাদ্যের জোগান। ফলে অনাহারেই কাটাতে হচ্ছে দিন। কেউ কেউ বা একবেলা খেয়েই দিন কাটাচ্ছেন। তাই ব্রুকিং ইনস্টিটিউশনের গবেষণা দলের প্রধান লওরেন বউর এরই মধ্যে প্রশাসনকে এবিষয়ে ব্যবস্থা নিয়ে খাদ্য সঙ্কট মেটানোর দিকে নজর দিতে অনুরোধ করেছেন। 

আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংগঠন আগেই জানিয়েছে করোনা সংক্রমণের জেরে সারা বিশ্বের অধিকাংশ মানুষই কাজ হারাবেন। যার জেরে বিশ্ব জুড়ে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দেবে। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পের তত্ত্বাবধানে শিশুদের এই অনাহারের তথ্য চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সারা বিশ্বে।