এই বদ্ধ অবস্থায় থাকতে হবে আরও কিছুদিন। ঠিক কবে নাগাদ সব ঠিক হবে, তা কেউ নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছে না। এদিকে শরীর ঠিক রাখতে ব্যায়ামের বিকল্প নেই। যারা এতদিন ব্যায়াম করাটাকে ততটা গুরুত্ব দিচ্ছিলেন না, তারাও সচেতন হয়ে উঠছেন।

কিন্তু চাইলেই তো হুট করে রাতারাতি দুর্দান্ত ব্যায়াম করার এনার্জি পাবেন না, বরং নিজের এক্তিয়ারের বাইরে গিয়ে অতিরিক্ত পরিশ্রম করলে চোট পেতে পারেন। তাই জেনে নিন কোন ধরনের ব্যায়াম করাটা আপনার পক্ষে সবচেয়ে সহজ ও কার্যকর।

প্রথমেই চেষ্টা করুন ঘরে, বারান্দায়, ছাতে হাঁটার। অনেকেই বলেন, দিনে এক হাজার ধাপ হাঁটা সুস্থ থাকার পক্ষে একান্ত প্রয়োজনীয়। তবে সেই সঙ্গে এটাও জেনে রাখুন যে এই ধারণার কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

এক হাজার ধাপ হাঁটতে পারলে নিঃসন্দেহে ভালো, কিন্তু তা সম্ভব না হলে অন্তত চার হাজার পা হাঁটুন, মোবাইল ট্র্যাকারে সহজেই হিসেব করতে পারবেন কতটা হাঁটা হলো।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সম্ভব হলে জোরে মিউজিক চালিয়ে নাচুন। সেটি চমৎকার ব্যায়াম। সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করার অভ্যাস খুব ভালো।

যারা আগে যোগব্যায়াম শিখেছেন, তারা আসন করতে পারেন- এমনি কিছু সাধারণ এক্সারসাইজ করা যায়, কিন্তু যোগের মুদ্রাগুলো একদম পারফেক্ট না হলে চলবে না।

যারা স্কিপিং করতে চান, তারা অবশ্যই জুতা পরে তা অভ্যাস করুন। যাই করুন না কেন, হাঁটুর স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হতে হবে। ব্যায়াম করে সুস্থ হতে গিয়ে আবার আঘাত যেন না লাগে!