ভুলেও এই সাত খাবার – করোনা আতঙ্কে বর্তমানে সবাই ঘরের মধ্যেই আটকে রয়েছেন। অযথা এই সময়ে বাইরে বের হওয়ার ঝুঁকি না নেয়াটাই উত্তম। এজন্য অনেকেই বেশি করে বাজার করে ফ্রিজে খাবার সংরক্ষণ করে রেখেছেন। তবে জানেন কি? সব ধরনের খাবার কিন্তু ফ্রিজে রাখা উচিত নয়। বিশেষ করে এই সাত খাবার ডিপ ফ্রিজে একদমই রাখবেন না-

দুগ্ধজাত দ্রব্য

বেশিদিন দুধ ফ্রিজে সংরক্ষণ করলে এর পুষ্টিগুণ হারিয়ে যায়। তেমনি পনির বা দইও ক্রমাগত ডিপ ফ্রিজে রাখলে আর বের করলে একসময় খাদ্যগুণ হারায়।

ভাজা পোড়া

চিকেন ফ্রাই, পাকোড়া বা নাগেটসের মতো ভাজাপোড়া খাবার অনেকেই নিত্যদিন খেয়ে থাকেন। তবে কখনো এই ভাজা খাবারগুলো ডিপ ফ্রিজে রাখবেন না। কারণ এগুলো ফ্রিজে রেখে খাওয়া মানে বিষ গ্রহণ করা।

নুডলস

রান্না করা নুডলস এবং পাস্তা ফ্রিজের নরমালে রাখলে দুই একদিন ভালো থাকে। তবে তা ডিপে রাখলে নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

শসা

বরফ ঠাণ্ডা শসার টুকরো কেবল চোখের জন্য ব্যবহার করুন। খাবার হিসেবে নয়। ঠাণ্ডা শসা ফ্রিজের বাইরে আনলেই স্বাদ বদলে যায়। এই শসার সালাড খাওয়া শরীরের জন্যও ঠিক নয়। অর্থাৎ শসা কখনো ডিপ ফ্রিজে রাখবেন না

ফল

কেবল শুকনো ফল ডিপ ফ্রিজের মধ্যে সংরক্ষণ করা নিরাপদ, তাজা ফল নয়। এগুলোকে হিমায়িত করলে তাদের গঠন, স্বাদে পরিবর্তন আসে। পুষ্টিগুণও কমে যায়।

কফি

কফি বীজ বা গুঁড়ো ফ্রিজে রাখলেই তা ফ্রিজারের গন্ধ ধরে নেয়। স্যাঁতসেঁতে হয়ে পড়ে। স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। কেবল কফি ব্যাগ বা প্যাকেট কয়েক সপ্তাহ ধরে ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যেতে পারে।

টমেটো সস

স্যান্ডউইচ, চিপস, স্ন্যাকস টমেটো সস ছাড়া খাওয়া চলেই না! তবে ভুলেও এটি দীর্ঘীদিন সংরক্ষণের আশায় ডিপ ফ্রিজে রেখে দেয়ার পরিকল্পনা করবেন না। এটি বরফ হয়ে জমার পর টমেটো পেস্ট, পানি এবং ভিনেগার আলাদা হয়ে যায়।

সূত্র: এনডিটিভি