কুষ্টিয়ায় বাড়ির মালিকের ছেলে’র দেয়া আগুনে ঝলসে গেছেন নয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূ। আশ’ঙ্কাজনক অবস্থায় ওই গৃহবধূ এখন ঢাকা মেডি’কেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকি’ৎসাধীন। তার শরী’রের প্রায় ৮০ শতাংশ ঝলসে গেছে।

পুলিশ এ ঘটনা’য় হত্যা চেষ্টার অভিযোগে রোক’নুজ্জামান রনি (৩৫) নামের বাড়ির মালি’কের বখাটে ছেলেকে গ্রেফতার করে কারাগা’রে পাঠিয়েছে। বুধবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় শহরের কমলাপুর এলাকা থেকে তাকে আ’টক করা হয়। আটক রোকনুজ্জামান রনি ওই এলাকার বজলুল হকের ছেলে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্ত’ফা জানান, গত ২৯ এপ্রিল সকালে পূর্বশত্রুতার জে’রে শহরের কমলাপুর এলা’কার বজলুল হকের বাড়ির ভাড়াটিয়া মেহেদী হাসানে’র স্ত্রী জুলেখাকে (৩৫) মালিকের বড় ছেলে রনি শ’রীরে পেট্রল ছিটি’য়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় জুলে’খার চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে কু’ষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে তা’কে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ডা. তাপস কুমার স’রকার জানান, ওই গৃহবধূর শরীরের প্রায় ৮০ শতাংশ আগুনে ঝলসে যাওয়ায় তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।