ভারতে  করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা  এখনও  এক হাজার পেরোয়নি। কিন্তু আগামী ৩ মে লকডাউন তুলে নেওয়া হলে দুই সপ্তাহের মধ্যে মৃতের সংখ্যার পাশাপাশি আক্রান্তের সংখ্যাও বহগুণে বেড়ে যেতে পারে। ১৯ মে’র মধ্যে মৃত্যু হতে পারে ৩৮ হাজারেরও বেশি মানুষ, বর্তমানে সংখ্যাটা ৬৫২।

অন্যদিকে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে যেতে পারে ৩০ লাখে। ৭৬ হাজারের বেশি আইসিইউ বেডের প্রয়োজন হতে পারে হাসপাতালগুলোতে। ওয়ানইন্ডিয়াবেঙ্গলি নামের একটি অনলাইন সাইটে এ খবর পাওয়া গেছে।

গবেষণায় ৪ সপ্তাহের মৃত্যুর সম্ভাব্য সংখ্যা তুলে ধরা হয়েছে। সেখানে দেখানো হয়েছে ২৮ এপ্রিল নাগাদ মৃতের সংখ্যা ১০১২ জন, দ্বিতীয় সপ্তাহ অর্থাৎ ৫ মে নাগাদ মৃতের সংখ্যা ৩২৫৮, তৃতীয় সপ্তাহ অর্থাৎ ১২ মে নাগাদ মৃতের সংখ্যা হতে পারে ১০৯২৪ এবং চতুর্থ সপ্তাহ অর্থাৎ ১৯ মে নাগাদ মৃতের সংখ্যা পৌঁছে যেতে পারে ৩৮২২০-তে।

দেশটিতে তৈরি হয়েছে স্ট্যাটিস্টিক্যাল মডেল। স্ট্যাটিস্টিক্যাল মডেলের নাম দেওয়া হয়েছে কোভিড ১৯ মেড ইনভেন্টরি, যা তৈরি করেছে জওহরলাল নেহরু সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড সায়েন্টিফিক রিসার্চ, ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স ব্যাঙ্গালোর, আইআইটি বম্বে, আর্মড ফোর্সের মেডিক্যাল কলেজ পুনে।

এই কাজে ষুক্ত রয়েছেন ভারত সরকারের প্রিন্সিপাল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইসর কে বিজয়রাঘবন। গবেষকরা বলেছেন, আক্রান্ত ও মৃত্যুর সম্ভাব্য সংখ্যা গণনা করা হয়েছে, ইতালি ও আমেরিকার ওপর ভিত্তি করে।