অভিনেতা ঋষি কাপুরের কাছে বড় আদরের মেয়ে মেয়ে ঋদ্ধিমা কাপুর। মেয়েকে নাকি ঋষি কাপুর চোখে  চোখে রাখতেন। একসময় নীতু কাপুর নিজেই একথা জানিয়েছিলেন। এদিকে বাবা ঋষি কাপুর যখন আর নেই, ঋদ্ধিমা তখন ছিলেন শ্বশুরবাড়ি দিল্লিতে। বাবাকে শেষবার দেখার জন্য ছটফট করছিলেন তিনি। 

জানা গেছে, ঋষি কাপুরের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পাওয়া মাত্রই ঋদ্ধিমা প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করেছেন, তাঁকে যেন দিল্লি থেকে মুম্বাই যেতে দেওয়া হয়। প্রশাসনকে ঋদ্ধিমা অনুরোধ করেন, শেষবারের মতো বাবাকে দেখতে চাই, দয়া করে মুম্বই যেতে অনুমতি দিন।’

পরিবারের এই পরিস্থিতিতে ঋদ্ধিমাকে ইতোমধ্যেই দিল্লি থেকে মুম্বাই যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে। তবে শুধু ঋদ্ধিমা নন, তাঁর সঙ্গে পরিবারের ৫ জনকেও দিল্লি থেকে মুম্বাই যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার নিজের ইনস্টাগ্রামে ঋদ্ধিমা কাপুর সাহানি লেখেন, বাবা আমি তোমায় খুব ভালোবাসি, তুমি একজন যোদ্ধা, যুদ্ধ করেছো। তোমার অভাব বোধ করবো প্রতিদিন। রোজ তোমার সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলা মিস করবো। যতক্ষণ না আমাদের আবার দেখা হয়। ইতি তোমারব মুস্ক। 

এদিকে ঋদ্ধিমার পক্ষে দিল্লি থেকে মুম্বাই ১৪শ কিলেমিটার গাড়িতে আসা সম্ভব নয়। সেক্ষেত্রে সময় লেগে যাবে ১৮ ঘণ্টা। তাই ঋদ্ধিমা কাপুর স্পেশাল চ্যাটার্ড বিমানে দিল্লি থেকে মুম্বাই যাওয়ার অনুমতি চান, তবে সেই অনুমতি শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীই দিতে পারেন, তাই ঋদ্ধিমাকে গাড়িতেই আসতে হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, কাপুর পরিবারের মেয়ে হওয়া সত্ত্বেও কারিশমা ও কারিনার মতো অভিনয়কে নিজের পেশা করেননি ঋষি কাপুর কন্যা ঋদ্ধিমা কাপুর সাহানি। তিনি একজন জুয়েলারি ডিজাইনার। দিল্লির ব্যবসায়ী ভারত সাহানিকে বিয়ে করে বর্তমানে দিল্লিতেই থাকেন তিনি। সূত্র-এএনআই, জিনিউজ