মানুষের অত্যন্ত খারাপ অভ্যাসগুলোর অন্যতম ধূমপান। শুধু তাই নয় যে কোনো রোগের ক্ষেত্রেই একজন ধূমপায়ীর আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে অন্যদের চেয়ে অনেক বেশি।

কারণ দীর্ঘসময় ধূমপানে ফুসফুসসহ অনেক দেহযন্ত্রই বিকল হয়ে পড়ে। কিন্তু ফ্রান্সের একটি গবেষণা বলছে ভিন্ন কথা। একজন ধূমপায়ী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে অন্যদের মতো মারাত্বক অসুস্থ সে হবে না।

ফ্রান্সের ওই চিকিৎসা গবেষকরা বলছেন, প্রতিদিন যারা ধূমপান করে তাদের মধ্যে কভিড-১৯ এর উপসর্গ খুব কমই পরিলক্ষিত হয়। তারা বলেন, আমাদের এ গবেষণা খুব শক্তভাবেই প্রমাণ করেছে যে, সাধারণ রোগীর চেয়ে দৈনন্দিন ধূমপায়ীদের দেহে করোনার উপসর্গ কম দেখা যায়।

এমনকি তারা কভিড-১৯ এ অন্যদের মতো মারাত্বক অসুস্থ হয় না। প্যারিস হসপিটালে ভর্তি করোনায় আক্রান্ত ৩৪৩ জনের মধ্যে এ জরিপ চালিয়ে দেখা যায় তাদের মধ্যে মাত্র ৫ শতাংশ লোক ধূমপান করত। অথচ ফ্রান্সের সাধারণ মানুষের মধ্যে ধূমপায়ীর হার ৩৫ শতাংশ।

এ বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন, ভাইরাস দেহের কোষে প্রবেশের ক্ষেত্রে নিকোটিন বাধা দেয়। তবে গবেষণা এখনও অসম্পূর্ণ। গবেষণার সহপরিচালক ও ইন্টারনাল মেডিসিনের অধ্যাপক ডা. জহির আমুরা বলেন, ‘আমরা এ নিয়ে আরো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করব।

তাই সাধারণ মানুষকে বলব এ কথা শুনে আপনারা আবার সিগারেট কিনতে দোকানে দৌড়াবেন না।’
তবে আরেক গবেষণা থেকে যুক্তরাজ্যের হেলথ সেক্রেটারি ম্যাট হ্যানকক বলেন, ‘পূর্বের গবেষণাগুলো থেকে এটা একেবারেই স্পষ্ট যে, ধূমপায়ী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে বেশি ঝুঁকিতে থাকে।’

সূত্র: ব্রিফ নিউজ, আল জাজিরা