মানব শরীরে ছোট থেকে ব’ড় নানা রোগই বাসা বাঁধে। তবে সব রোগই শরী’রে কোনো না কোনো উপসর্গ প্রকাশ করে। অনেকেই এ’সব উপসর্গ বুঝতে পারেন না। ফলে সেগু’লোকে গুরুত্বও দেন না।

একসময় যা কঠিন বিপ’দ ডেকে আনে। তাই জেনে রাখা জরুরি এমন কিছু উপ’সর্গ বা শরীরে কিছু বদল সম্পর্কে, যার পরিণতি ভয়ং’কর হতে পারে। চলুন জেনে নেয়া যাক শরীরের ১১ লক্ষণ, যা জানা থাকলে আ’গে থেকেই সাবধান থাকা সম্ভব হবে।

ঠোঁট ফাটা

যদি প্রায়ই ঠোঁট ফে’টে থাকে তবে এর কারণ জানা জরুরি। মূলত ভিটামিন বি–এর অভাবে এমনটা হ’তে পারে। এছাড়া ভিটামিন বি এর  অভাব থাকলে রক্তশূ’ন্যতাও হতে পারে। এক্ষেত্রে পপকর্ন, লবণ, অলিভ ওয়েল, ঝাল লাল মরি’চ খেলে বি ভিটামিনের ঘাটতি পূরণ হতে পারে।

বুকে ব্যথা

জানলে অ’বাক হবেন, ৩০ কারণে বুকে ব্যথা হয়। সাধারণত বুকে ব্যথা হলে অ্যা’সিডিটি ভেবে থাকেন অনেকেই। তবে এই ব্যথা হৃদরো’গেরও লক্ষণ হতে পারে। হতে পারে। তাই অবহেলা নয়। শ্বাসকষ্ট, ক্লান্তি, শীতকা’লেও ঘাম, নাড়ির অনিয়মিত বা দ্রুত স্পন্দন থাকলে দ্রুত চিকিৎসা নিন।

তিল ও আঁচিল

শরীরে হঠাৎ কোনো দাগ দেখ’তে পেলে সাবধান। শরীরে হঠাৎ করে তিল বা আঁচিলের সং’খ্যা বেড়ে গেলেও নজরদারি দরকার। তিল বা আঁচিল ক্ষতিকর নয়। তবে তিল বা আঁচিলে’র বদল থেকে বড় সমস্যা হতে পারে।

চুল পাতলা হয়ে যাওয়া

নারীদের ক্ষেত্রে চুলের ঘন’ত্ব কমে যাওয়াটা ভয়ংকর। যদি খুব বেশি চুল পড়ে যেতে থাকে তাহলে চিকিৎস’কের কাছে যাওয়া দরকার। পুষ্টিহীনতা বা কোনো অসুখ থেকে এম’নটা হতে পারে।

নাক ডাকা

হৃদরোগ, ক্লান্তি নাক ডাকা’র কারণ হতে পারে। শরীর যথেষ্ট অক্সিজেন না পেলেও এমন’টা হতে পারে। ওজন কমালে নাক ডাকা ক’মতে পারে। তবে সমস্যাটি নিয়ে চিকিৎস’কের কাছে যাওয়া ভালো।

ত্বকের সমস্যা

ত্বক শরীরের গুরু’ত্বপূর্ণ অংশ। ত্বকে র‌্যাশ, একজিমা, সংক্রমণও শরীরের একধরনের বার্তা। শরীর এ রকম পরিস্থিতি’তে কোনো গোলযোগের সংকেত দেয়। পুষ্টির অভাব, অ্যালার্জি থেকেও এমনটা হতে পারে।

পিপাসা

দৈনিক দুই লিটার পানি পান করা শরীরে’র জন্য ভালো। এর চেয়ে বেশি পানি পান করলে বা অনিয়মি’ত পানি পান করলে জটিল সমস্যা হতে পারে। বারবার পানি পিপাসা হৃদরো’গ বা কিডনিসংক্রান্ত জটিলতা’র কারণ হতে পারে। টাইপ ২ ডায়বেটিসের লক্ষণও হতে পারে। 
 তাই চিকিৎসকের সঙ্গে পরা’মর্শ করাটা জরুরি।

ক্লান্তি

আপনি দিনের যে কোনো সময় ক্লান্তি’বোধ করতে পারেন। খুব বেশি কাজের চাপ না পড়লেও যদি আপনি প্রায়ই ক্লান্ত হয়ে পড়েন, তাহলে সত’র্ক হওয়া দরকার। অপুষ্টি বা থাইরয়েড গ্রন্থির সম’স্যার কারণে এমনটি হতে পারে।

মাথাব্যথা

মাথাব্যথার মাধ্যমে শরীর আপ’নাকে কিছু একটা জানাতে চায়। অনেকেই ব্যথানাশক ওষুধ দিয়ে সাম’য়িক উপশম পেতে চেষ্টা করেন। তবে মাথাব্যথার কারণটা আরো গভীর হতে পারে। যদি প্রচুর পা’নি পান ও মুক্ত পরিবেশে থাকার পরও সমস্যার সমাধান না হয়, তাহলে পানিশূন্য’তার কারণে মাথাব্যথা হতে পারে। পুষ্টিহীনতা, ঘুমের স্বল্পতা অথবা মান’সিক চাপ থেকেও কিন্তু এমন ব্যথা হতে পারে।

পেটের গোলমাল

পাকস্থলী প্রতিদিন পরিষ্কা’র রাখাটা খুব জরুরি। প্রত্যেক মানুষের শরীরের আলাদা ধরন রয়েছে। তাই অভ্যাসগুলোও আ’লাদা। তবে যদি পেটের গোলমাল খুব বেশি হয়, তাহলে চিকিৎ’সা প্রয়োজন। দিনে কয়েকবার প্রসাধন কক্ষে যেতে হলে, পেটের বর্জ্যে পরিবর্তন দেখা দিলে চিকিৎসকে’র কাছে যাওয়া জরুরি।

ওজন কমে যাওয়া

হঠাৎ ওজন কমে যাওয়া মারাত্ম’ক একটি লক্ষণ। এ রকম হলে চিকিৎস’কের কাছে যাওয়া জরুরি। ডায়বেটিস, ক্যানসার, ভাইরাসের সংক্রমণ, পেটের অসুখ, হতাশাসহ নানা অসু’খের কারণে ওজন কমে যেতে পারে। যত দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যাবেন তত দ্রুত উপ’কার পাবেন।