বর্তমানে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি কোভিড-১৯ ভ্যাকসি’নের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালানো হচ্ছে। আগামী ছয় সপ্তাহের মধ্যে এই পরীক্ষা’র ফলাফল অর্থাৎ, এটি করোনা প্রতিরো’ধে পুরোপুরি সক্ষম ও মানব দেহের জন্য নিরাপদ কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে আশা করছেন সেখানকার গবেষকরা।

এ বিষয়ে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর জন বেল জানান, ছয় সপ্তাহ অর্থাৎ, জুন মাসের মাঝা’মাঝি সময়ের মধ্যে মানবদেহে ভ্যাকসিনের প্রভাব সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে। তারপরই এটি স’বার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। প্রথম দ’ফায় এই টিকা দেয়া হবে ব্রিটেনের এনএইচএস কর্মীদের।

এখন পরীক্ষা-নিরী’ক্ষার মধ্যে থাকা করোনাভ্যাকসিন তৈরিতে কাজ করে যা’চ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। তাদের সঙ্গে আছে ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট আস্ট্রাজেনকা। ভ্যাকসিন উৎপাদন ও বৃহৎ পরিসরে বণ্টনের বিষয়ে আস্ট্রাজেনকার স’ঙ্গে অক্সফোর্ডের সমঝোতার বিষয়টি বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়েছে।

দ্য মিরর জানায়, এই সমঝো’তার ফলে দ্রুতই বিশ্বের সব প্রান্তে পৌঁছে দেয়া যাবে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন। ইতিমধ্যে মানবদেহে এই ভ্যাকসিন প্রবেশ করানো হয়েছে। এতে বৃটেনের শত শত স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিয়েছে। সংশ্লিষ্টরা ম’নে করছেন, করোনা প্রতি’রোধে এই ভ্যাকসিন কাজ করার সম্ভাবনা রয়েছে। সূত্র: ডেইলি মেইল।