উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের কি সত্যিই মৃত্যু হয়েছে? কিম জং উনের মৃত্যুর  চাঞ্চল্যকর খবর ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বজুড়ে। টুইটারেও ঘুরছে এমন একাধিক গুজব।

হংকং স্যাটেলাইট টেলিভিশনের ভাইস ডিরেক্টর শিজিয়ান জিংজু শীর্ষ স্তরের সূত্রের খবর জানিয়ে, তাঁর ওয়েইবো অ্যাকাউন্টে বিবৃতি দিয়ে বলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা মারা গেছেন। ওয়েইবোতে ১৫ মিলিয়ন মানুষ তাঁকে ফলোও করেন।

তবে এই মৃত্যু সংবাদ এখনও কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা, বা অন্য কোনও রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম সমর্থন করেনি।

গত ১১ এপ্রিল ৩৬ বছর বয়সী রাষ্ট্রনেতা কিমকে শেষ দেখা গিয়েছিল। সরকারি একটি বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। তাঁর প্রয়াত দাদা কিম ইল সাং-এর জন্মদিন পালন করেন ১৫ এপ্রিল।

এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে উধাও তিনি। কোথাও দেখা যাচ্ছে না তাঁকে। যদিও উত্তর কোরিয়ার এক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি হার্ট সার্জারি হয়েছে তাঁর।বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন।

হংকং টিভিতে প্রকাশিত একটি ছবিকে টুইট করছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম। সেখানে দেখা যাচ্ছে, উত্তর কোরিয়ার শাসকের মৃতদেহ শায়িত রয়েছে। আর ছবি বিশ্বের দরবারে আরও চাঞ্চল্য ছড়িয়ে দিয়েছে। যদিও সেই ছবিও আসল কিনা সেই সত্যতা যাচাই করা হয়নি।

কয়েক দিন আগেই খবর এসেছিল যে ভালো নেই উত্তর কোরিয়ার সর্বাধিনায়ক কিম জং উন। একটা অস্ত্রোপচার হওয়ার পর তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। উত্তর কোরিয়া এই খবর উড়িয়ে দিলেও, খবরটি নিশ্চিত করেছিলেন মার্কিন গোয়েন্দারা। 

এই অবস্থায় কিম জং কে সুস্থ করতে সাহায্যের হাত বাড়ায় চীন।  সেখানে কয়েকজন ডাক্তারকে পাঠানো হয়। যারা কিমকে পরীক্ষা করে দেখবেন বলে গিয়েছিলেন।