অসংলগ্ন কথাবার্তার জন্য প্রায়ই সমালোচিত ও নিন্দিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবার করোনাভাইরাসের চিকিৎসার ব্যাপারে প্রাণঘাতী পরামর্শ দিয়েছেন। ত্বকের উপরিভাগে এবং বিভিন্ন বস্তুতে লেগে থাকা করোনাভাইরাস ধ্বংসের জন্য যেসব জীবাণুনাশক রাসায়নিক পদার্থ ও পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়, সেগুলো শরীরের ভেতর প্রবেশ করিয়ে কভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছেন ট্রাম্প।

গত বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে সংবাদ সম্মেলনে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত মার্কিন গবেষণা প্রতিবেদন তুলে ধরে সংশ্লিষ্ট টাস্কফোর্স। এতে বলা হয়, সূর্যালোক ও তাপের সংস্পর্শে এলে করোনাভাইরাস দ্রুত দুর্বল হয়ে যায়। এ ছাড়া মানুষের লালা ও শ্বাসতন্ত্র সংশ্লিষ্ট তরল পদার্থে থাকা করোনাভাইরাস ব্লিচের সংস্পর্শে এলে পাঁচ মিনিটের মধ্যে ধ্বংস হয়ে যায় আর আইসোপ্রপাইল অ্যালকোহলে কাজ হয় আরো দ্রুত। যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা দপ্তরের সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ডিরেক্টরেটের ভারপ্রাপ্ত প্রধান উইলিয়াম ব্রায়ান সরকারি গবেষণা প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য তুলে ধরেন। প্রতিবেদনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দিক তুলে ধরার পাশাপাশি তিনি এসব তথ্য কাজে লাগানোর ব্যাপারে সতর্ক থাকার ওপর জোর দেন।

অথচ ট্রাম্প সংবাদ সম্মেলনে বলে বসেন, ‘সুতরাং ধরে নেওয়া যেতে পারে, শক্তিশালী আল্ট্রাভায়োলেট অথবা খুব শক্তিশালী কোনো আলো আমরা শরীরে প্রয়োগ করাতে পারি।’ করোনাভাইরাস মোকাবেলায় হোয়াইট হাউসের অন্যতম শীর্ষ কর্মকর্তা ড. ডেবোরাহ বিরক্সকে উদ্দেশ করে ট্রাম্প আরো বলেন, ‘বিষয়টা পরীক্ষা করা হয়নি, কিন্তু আপনারা পরীক্ষা করতে চান, আপনি এমনটাই বলেছেন মনে হয়।’

এটুকু বলেই ক্ষান্ত হননি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ত্বক ভেদ করে অথবা অন্য কোনো উপায়ে শরীরের ভেতরে শক্তিশালী আলোকরশ্মি প্রয়োগ করে করোনাভাইরাস ধ্বংস করা যায় কি না, সেটাও পরীক্ষা করে দেখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। তাঁর মতে, ব্যাপারটা ‘আকর্ষণীয়’।

এরপর ট্রাম্প আসেন জীবাণুনাশক রাসায়নিক পদার্থের প্রসঙ্গে। তিনি বলেন, ‘জীবাণুনাশকের মাধ্যমে ভাইরাস এক মিনিটে ধ্বংস হয়ে যায়। এক মিনিটে। জীবাণুনাশক শরীরের ভেতর সিরিঞ্জের মাধ্যমে ঢুকিয়ে দিয়ে অথবা ভেতরটা পুরোপুরি পরিষ্কার করার মতো কোনো পদক্ষেপ কি নেওয়া যায়? এটা পরীক্ষা করা কৌতূহলোদ্দীপক হবে।’

ড. বিরক্সের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় আলো ও তাপের ব্যবহারের কথা তিনি জানেন কি না। এ রকম তথ্য তাঁর জানা নেই—ড. বিরক্সের এমন জবাব পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ট্রাম্প বলেন, ‘আমার মনে হয়, এ রকম বিরাট ব্যাপার খতিয়ে দেখা দরকার।’ ট্রাম্পের এসব পরামর্শে ভীষণ খেপেছেন চিকিৎসকরা। ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার চার্লসটনের চিকিৎসক কাশিফ মাহমুদ টুইটারে মন্তব্য করেন, ট্রাম্পের ওই সব পরামর্শ কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় এবং কেউ যেন তাঁর কথা না শোনে।

এ ছাড়া ফুসফুসঘটিত রোগ বিশেষজ্ঞ ড. বিন গুপ্ত জানান, করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় ট্রাম্প যেসব জীবাণুনাশক শরীরে ঢোকানোর পরামর্শ দিয়েছেন, মানুষ আত্মহত্যা করার সময় সেগুলো কাজে লাগায়। জাকারবার্গ সান ফ্র্যান্সিসকো জেনারেল হসপিটালের ফুসফুসের রোগ বিষয়ক বিশেষজ্ঞ জন বামস জানান, ব্লিচ দূরে থাক, ব্লিচের ধোঁয়াই বড় ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা তৈরির জন্য যথেষ্ট। তিনি বলেন, ‘সামান্য পরিমাণ ব্লিচ অথবা আইসোপ্রপাইল অ্যালকোহলের মিশ্রণও শরীরের জন্য নিরাপদ নয়।’ ট্রাম্পের পরামর্শকে ‘একদম হাস্যকর’ অ্যাখ্যা দেন তিনি। সূত্র : বিবিসি