কক্সবা’জারের টেকনাফ সী’মান্তে এক প্রকারের পোকার আক্রম’ণ শুরু হয়েছে। পোকাগুলো স্থানীয় লোকজনের কা’ছে অচেনা। অনেকে’র ধারণা এগুলোই সম্ভবত ‘পঙ্গপাল।’ তবে কেউ নিশ্চি’ত করে বলতে পারেনি এসব পো’কা পঙ্গপাল কিনা। 

পঙ্গপালের আক্রম’ণ শুরু হয়েছে মনে করে স্থা’নীয় জনমনে আতংকের সৃষ্টি হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক মো. আবু’ল কাশেম গতরাতে কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন- ‘পোকাগুলোর পাখা নেই। উড়তে পা’রে না। লাফিয়ে লাফি’য়ে এসব চলাচল করে। তাই এগু’লো ভারত হোক আর মিয়ান’মার হোক এখানে কিভাবে আসবে-প্রশ্ন তার।’

উপ-পরিচালক ব’লেন, দুই সপ্তাহ আগে টেকনাফের লম্বরি পাড়ার এ’কটি পরিত্যক্ত মুরগির খামারের ঝো’প জঙ্গলের ভেতর পোকাগুলো বংশ বিস্তার করে। খবর পেয়ে কৃ’ষি সম্প্রসারণ বিভাগের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষ প্র’য়োগ করে।

এতে পোকাগুলোর অ’নেকাংশই মারা যায়। পরবর্তীতে এসব পোকা আ’বারো বংশ বিস্তার করে। তিনি নিশ্চিত করে জা’নান, এসব পোকা কোনোভাবে’ই পঙ্গপাল হতে পারে না। কেননা পঙ্গ’পালের পাখা রয়েছে। আ’র এসব পোকা হচ্ছে পাখাহীন।

স্থানীয় লোক’জন জানিয়েছেন, আকস্মিক ঝাঁ’কে ঝাঁকে পোকাগুলো টেকনা’ফ সীমান্তে দেখা যেতে শুরু ক’রে। এসব পোকার ঝাঁক গা’ছে বসে মুহূর্তেই পাতা’গুলো সাবাড় করে ফেলছে।

টেকনাফ পৌ’র এলাকার লম্বরি পাড়ার সোহেল সিক’দার নামের একজন বাসি’ন্দা গতরাতে জানান, গত দুদিনেই তার ভিটার ৫টি আম গাছ ও ২টি তেলসুল গাছে’র পাতা এসব পোকায় সাবাড় করে ফেলেছে।